গাছের প্রতি নেশাই পেশার রূপ নিয়েছে বাবলুর

145

মেখলিগঞ্জ: গাছের প্রতি নেশাই পেশার রূপ নিয়েছে বাবলুর। ৭০ মেখলিগঞ্জের বাসিন্দা নজরুল মহম্মদ (৪০)। বাবলু নামেই মেখলিগঞ্জ বাজারে পরিচিত তিনি। মেখলিগঞ্জ বাজারে বিশ্বাস মেডিকেল সংলগ্ন এলাকায় গাছ বিক্রি করেন তিনি। বিভিন্ন রকমের ফুল থেকে শুরু করে আম, নারকেল, অ্যালোভেরা সহ ১০ টাকা থেকে ২০০ টাকা মূল্যের পর্যন্ত গাছ পাওয়া যায় তাঁর দোকানে।

বাবলু জানান, গাছের প্রতি ভালোবাসা তাঁর অনেক দিনের। এই ভালবাসা থেকেই গত ১৫ বছর ধরে গাছ বিক্রি করে চলেছেন তিনি। তিনি আরও জানান, মানুষ যে পরিমাণ গাছ কাটে সেই পরিমাণে গাছ লাগাচ্ছে না, যার ফলে পরিবেশের ক্ষতি হচ্ছে। মানুষ যাতে গাছকে ভালোবেসে আরও বেশি পরিমাণে গাছ লাগায় সেই বার্তা দিতেই গাছ বিক্রি করছেন তিনি।

- Advertisement -

করোনা পরিস্থিতিতে লকডাউনে দীর্ঘদিন ব্যবসা বন্ধ থাকায় অর্থনৈতিক সমস্যার সম্মুখীন হয়েছিলেন তিনি। করোনা পরিস্থিতির কারণে মানুষের হাতে অর্থ না থাকায় এখন ব্যবসা শুরু হলেও ব্যবসা ভালো চলছে না বলেও জানালেন তিনি।

বাবলুর পরিবারের সদস্য সংখ্যা পাঁচ। গাছের প্রতি ভালোবাসা তাঁর ছোট বেলা থেকেই। পরবর্তী সময়ে গাছের প্রতি নেশাই তাঁর পেশার রূপ নেয়। বাবলুর দিদি মানুষের বাড়ি হাজিরা কাজ করলেও মূলত এই দোকানের ওপর নির্ভর করেই চলে সংসার। কোচবিহার জেলার মহকুমা শহর মেখলিগঞ্জ। মেখলিগঞ্জ বাজারে গাছ বিক্রির দোকান তেমন একটা চোখে পড়ে না। মেখলিগঞ্জ পুরসভার সঙ্গে সঙ্গে ব্লকের ৮টি গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকা ও মহকুমার হলদিবাড়ি ব্লক সহ পার্শ্ববর্তী এলাকার মোট কয়েক হাজার মানুষ রোজ মেখলিগঞ্জে আসেন বিভিন্ন প্রয়োজনে। ফলে স্বাভাবিকভাবেই অন্য বছরগুলোয় জমে উঠত বাবলু মহম্মদের ব্যবসা। অন্য বছরগুলোয় সিজিনে আনুমানিক ৩০ হাজার টাকার গাছ বিক্রি করেন তিনি। কিন্তু চলতি বছরে বিক্রি কম হওয়ায় ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছেন তিনি।