আজ বাবরি রায়, আদালতে উপস্থিত ২৬ অভিযুক্ত

287

নয়াদিল্লি: ২৮ বছরের অপেক্ষা শেষে অবশেষে বাবরি মসজিদ ধ্বংস মামলার রায় ঘোষণা হতে চলেছে। বুধবার সেই বাবরি মসজিদ ধ্বংসের রায় দেবে লখনউয়ের বিশেষ সিবিআই আদালত। প্রবীণ বিজেপি নেতা লালকৃষ্ণ আডবানি, মুরলিমনোহর যোশী, উমা ভারতীর মতো নেতানেত্রীরা মসজিদ ভাঙার ষড়যন্ত্র, পরিকল্পনা ও উস্কানিতে লিপ্ত ছিলেন কিনা, এদিন সেই রায় শোনাতে চলেছে আদালত। বেলা ১০টায় রায় ঘোষণার প্রক্রিয়া শুরু হওয়ার কথা থাকলেও, ১১ টা পর্যন্ত তা শুরু হয়নি। এ দিন রায় ঘোষণা করবেন বিচারক সুরেন্দ্রকুমার যাদব। এদিকে কোনওরকম অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে আদালতের সর্বত্র কড়া নিরাপত্তার চাদড়ে ঘিরে ফেলা হয়েছে।

- Advertisement -

জানা গিয়েছে, এদিন ১১টা ১৫ পর্যন্ত ২৬ জন অভিযুক্ত আদালতে পৌঁছেছেন। আদালতে হাজিরা দেওয়া থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয় লালকৃষ্ণ আডবানি, মুরলিমনোহর যোশী, উমা ভারতী, কল্যাণ সিংহ, সতীশ প্রধান এবং রামমন্দির ট্রাস্টের প্রধান নৃত্যগোপাল দাসকে। রায় ঘোষণার সময় অভিযুক্তদের সশরীরে আদালতে উপস্থিত থাকতে বলা হলেও করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে এই মুহূর্তে হাসপাতালে ভর্তি উমা ভারতী। অতিমারির মধ্যে বয়সজনিত কারণে লালকৃষ্ণ আডবানি এবং মুরলিমনোহর যেশী আদালতে যাবেন না বলে জানিয়েছেন আডবানির সচিব দীপক চোপড়া। আদালত ব্যবস্থা করলে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে তাঁরা আদালতে হাজিরা দেবেন বলে জানিয়েছেন তিনি। বাবরি মসজিদ ধ্বংসের সময় উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী ছিলেন কল্যাণ সিং। তিনিও ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমেই আদালতে হাজিরা দিতে চান বলে জানা গিয়েছে। বাবরি ধ্বংস মামলায় মোট ৪৯ জন অভিযুক্তের মধ্যে বিশ্ব হিন্দু পরিষদের অশোক সিঙ্ঘল, শিবসেনার বাল ঠাকরে, অযোধ্যার পরমহংস রামচন্দ্র দাসের মতো ১৭ জন ইতিমধ্যে প্রয়াত। বাকিদের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করছেন আইনজীবী কেকে মিশ্র।

প্রসঙ্গত, ১৯৯২ সালের ৬ ডিসেম্বর ধ্বংস হয়েছিল বাবরি মসজিদ। অভিযোগ, ঘটনাস্থলে উপস্থিত থেকে প্ররোচনা দিয়েছিলেন আডবানি, যোশীরা। ১৯৯২ সালের এই ঘটনায় শুরুর দিকে দুটি এফআইআর দায়ের হয়েছিল। পরে একে একে ৪৫টি এফআইআর এই মামলায় রুজু হয়। বিচারপ্রক্রিয়ার জন্য রায়বেরিলিতে তৈরি হয় সিবিআইয়ের বিশেষ আদালত। তারপর থেকেই এই মামলা চললেও ২০০১-এ আডবানি, যোশীদের অভিযোগ থেকে রেহাই দেয় এলাহাবাদ হাইকোর্ট। কিন্তু, ঘটনার নতুন মোড় নেয় ২০১৭ সালে। সুপ্রিমকোর্ট জানিয়ে দেয়, হাইকোর্টের এই রায় ভুল। আডবানিরাও অভিযুক্ত। এদিন এই মামলার রায়দান হতে চলেছে।