মন্ত্রী হতেই কাঁটা সরিয়ে দিয়েছেন নেতারা, টিকিট না পেয়ে বিস্ফোরক বাচ্চু

219

বালুরঘাট: বিজেপি যদি মনে করে আমাকে কাজে লাগাবে, তাহলে তারা যোগাযোগ করবে। টিকিট না পাওয়ার পরে বিজেপি যোগ প্রসঙ্গে এমনই মন্তব্য তৃণমূলের আদিবাসী নেতা বাচ্চু হাঁসদার। টিকিট না দেওয়াতে চরম হতাশ হয়ে পড়েছেন তিনি। এর জেরে তিনি বিজেপির সঙ্গে যোগাযোগ করছেন কিনা, সে প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘আমি কোথাও যোগাযোগ করিনি। বিজেপি যদি মনে করে আমাকে কাজে লাগাবে, তাহলে তারা যোগাযোগ করবে। আমি চুপচাপই রয়েছি।’ শুধু তাই নয়, জেলার নেতারা যাঁরা ভোটে দাঁড়িয়েছেন, তাঁরা মন্ত্রী হওয়ার পথ প্রশস্ত করতেই কাঁটা সরিয়ে দিয়েছেন বলেও বিস্ফারক মন্তব্য করেন বাচ্চুবাবু।

এদিন বাচ্চু হাঁসদা বলেন, ‘আমার কোনও রাগ অভিমান নেই। আমি চুপচাপ আছি। দল যদি মনে করে আমার চেয়ে ভালো কেউ ভোট করাতে পারবে, দল তাঁকে দায়িত্ব দিয়েছে আমার কিছু বলার নেই। দলের কোনও সিদ্ধান্তই আমাকে জানানো হত না, দলের টিকিট কাটা হচ্ছে, আমি মন্ত্রী হয়েও তা জানিনি, এটাতে আমি অবাক নই। আমি কোনও দুর্নীতির সঙ্গে জড়িত নই। দলেও নিষ্ক্রিয় ছিলাম না। তাও কেন আমাকে টিকিট দেওয়া হয়নি, তা আমি বলতে পারব না। এমনকি, আমি বিজেপির সঙ্গে যোগাযোগ রাখা বা বিজেপিতে যাওয়ার মতো চেষ্টাও করিনি। আমি দাঁড়ালে জিতবই এবং আবার আমাকে মন্ত্রী করা হবে বলেই দলের অনেকেই আশঙ্কা করেই আমাকে টিকিট পেতে দেয়নি। পথের কাঁটা সরিয়েছে। তবে আমার কোনও অভিমান নেই, দল যা সিদ্ধান্ত নিয়েছে, কেন নিয়েছে, সে নিয়ে আমার কিছু বলার নেই।’

- Advertisement -

দক্ষিণ দিনাজপুরের তৃণমূল জেলা সভাপতি গৌতম দাস বলেন, ‘বাচ্চু হাঁসদা কি বলেছেন, তা আমার জানা নেই। তিনি অনেক দায়িত্ব সামলে এসেছেন। তবে ভোটের টিকিট দেওয়ার বিষয়টি পুরোপুরি দলনেত্রী দেখেন। জেলার কোনও নেতার এতে হাত থাকে না। দলের হয়ে কাজ করতে চাইলে তাঁকে যথেষ্ট সম্মান দেওয়া হবে।’