অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে মিড-ডে মিল বিলি, কাঠগড়ায় স্কুল

199

বালুরঘাট: একতলা টিনের ছাউনি দেওয়া পাকাঘর। পুরো ঘরটির দখল নিয়েছে বিভিন্ন লতাপাতা ও ঝোপজঙ্গল। দূর থেকে দেখলে মনে হবে যেন পরিত্যক্ত কোনও ভবন। দীর্ঘ বছর হয়তো ওই এলাকায় পা পড়েনি কারও। কিন্তু সেটি যে আস্ত একটি প্রাথমিক বিদ্যালয় এবং সেখান থেকে নিয়মিত মিড-ডে মিলের সামগ্রী বণ্টন হয়, তা দেখে বোঝার উপায় নেই। শুধু স্কুলভবন নয় তার সামনে থাকা শিশুদের খেলার সামগ্রীগুলিও ঢেকে রয়েছে লতাপাতায়। স্কুলের যে অংশটিতে লতাপাতা দখল নিতে পারেনি, সেই এলাকাটিতে আবার কচুবন তৈরি হয়ে গিয়েছে। আর ওই কচুবনের মধ্যেই দেখতে পাওয়া যাচ্ছে মদের বোতল। পঠনপাঠন ও বাচ্চাদের আনাগোনা করোনার কারণে বন্ধ থাকলেও, প্রাণ হাতে নিয়েই ঝোপজঙ্গলে ঢেকে থাকা স্কুলে গিয়ে মিড-ডে মিলের সামগ্রী আনতে হয় অভিভাবকদের। ফলে একদিকে যেমন বিষাক্ত পোকামাকড়ের আতঙ্ক রয়েছে, তেমনি শিক্ষকদের এমন উদাসীনতার কারণে তাঁদের বিরুদ্ধে ক্ষোভে ফুঁসছেন অভিভাবকরা। বালুরঘাটের চকভৃগু ২ নম্বর জিএসএফপি বিদ্যালয়ের এমন দশায় ক্ষুদ্ধ স্থানীয় বাসিন্দারাও।

স্কুলের সহ শিক্ষক তরুণ রায় চৌধুরী জানান, তাঁরা স্কুলে পরিষ্কার পরিছন্নতা বজায় রাখেন। কিন্তু সম্প্রতি বর্ষার জল পেয়ে ঝোপজঙ্গল বেড়ে উঠেছে। তাঁরা এই মাসের মিড-ডে মিল দেওয়ার আগে সেগুলি পরিষ্কার করবেন বলে জানান তিনি।

- Advertisement -