গৌড় এক্সপ্রেসের ভাঙাচোরা বগি নিয়ে ক্ষোভ

128

পঙ্কজ মহন্ত, বালুরঘাট : গৌড় এক্সপ্রেসের ঝাঁচকচকে বগি সরিয়ে ভাঙাচোরা বগি লাগানোর কারণে বালুরঘাটের বাসিন্দাদের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। রেল কর্তপক্ষের বিরুদ্ধে তাঁরা বঞ্চনার অভিযোগ তুলে সরব হয়েছেন। তাঁদের আরও অভিযোগ, পুরাতন বগিগুলির মান এতটাই খারাপ যে সেগুলিতে যাতাযাত করার সময় রেলযাত্রীদের সমস্যার মুখে পড়তে হয়। বালুরঘাট রেল উন্নয়ন কমিটির তরফে বিষয়টি নিয়ে রেলের আধিকারিকদের সঙ্গে কথা বলার আশ্বাস দেওয়া হয়েছে।

বাসিন্দাদের বক্তব্য, রাজ্য হোক বা কেন্দ্র, সব সরকারি প্রকল্প থেকে বরাবরই বঞ্চিত থেকেছে প্রান্তিক জেলা দক্ষিণ দিনাজপুর। এবার বালুরঘাট থেকে শিয়ালদহগামী গৌড় এক্সপ্রেসে নতুন কোচের পরিবর্তে হঠাৎ পুরোনো বগি জুড়ে দেওয়া হয়েছে। যেখানে মেরামতি করা ও জোড়াতালি দেওয়ার ছবি পরিষ্কার নজরে পড়ে। আগের চকচকে নীল রংয়ের বগির বদলে বেহাল দশার সাদা রংয়ে বগি সংযোগের জন্য ক্ষোভে ফেটে পড়ছেন বালুরঘাটবাসীর একাংশ। বাসিন্দাদের অভিযোগ, রেল নিয়ে দীর্ঘদিনের লড়াই শেষে ২০০৪ সালে বালুরঘাট ভারতের রেলের মানচিত্রে প্রবেশ করে। কিন্তু এই প্রত্যন্ত শহর বঞ্চনার শিকার হয়েছে বহুবার। এখন মেরামত করা পুরোনো বগি জুড়ে দিয়েছে ইঞ্জিনের সঙ্গে। এমনিতেই বালুরঘাট থেকে হাতেগোনা কয়েকটি ট্রেন চলে। তার ওপর এইরকম হয়রানি।

একলাখি বালুরঘাট রেল উন্নয়ন কমিটির সাধারণ সম্পাদক পীযূষ দেব বলেন, কলকাতাগামী গৌড় এক্সপ্রেসে আগের ভালো বগিগুলো সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। তার পরিবর্তে যুক্ত করা হয়েছে পুরোনো সাদা ঝালাই করা বগি। যার এসি টু টায়ারের বাথরুমে অনবরত জল পড়ে যাচ্ছে। আবার কোনো জায়গায় জলের পাইপ অকেজো হয়ে আছে। যাত্রীরা বাথরুমে গিয়ে জলের অভাবে হয়রানির শিকার হচ্ছেন। সাদা বগিগুলি যুক্ত করার পরেই একদিন স্টেশনে ঢোকার মুখে গৌড় এক্সপ্রেসের একটি বগির নীচে আগুন লেগে যাওয়ার ঘটনাও ঘটেছে। যার জন্য আতঙ্ক ছড়িয়েছিল স্টেশন চত্বরে। এই পুরোনো বগিগুলির জন্য যে কোনো সময়ে দুর্ঘটনা ঘটতে পারে বালুরঘাট থেকে কলকাতাগামী এই ব্যস্ততম রেলে। ভালো বগি সরিয়ে কেন পুরোনো বগি যুক্ত করা হল, তা নিয়ে আমরা রেল কর্তপক্ষের সঙ্গে আলোচনা করব।

এই বিষয়ে বালুরঘাটের বিধায়ক বিশ্বনাথ চৌধুরি বলেন, রেল কর্তৃপক্ষ প্রতিবার এমনটা করে আসছে। খারাপ বগিগুলি বালুরঘাটে নিয়ে আসা হচ্ছে। ভালো বগিগুলিকে অন্য জায়গায় পাঠানো হচ্ছে। একই সুবিধাযুক্ত অন্য রেলগুলিতে যাত্রীরা যে পরিমাণ ভাড়া দেন, বালুরঘাটবাসীও সেই একই পরিমাণ ভাড়া দিয়ে যাত্রা করেন। যদিও রেল কর্তৃক্ষের সাফাই, অভ্যন্তরীণ কিছু অসুবিধার জন্য অস্থায়ীভাবে এই সাদা বগিগুলি দেওয়া হয়েছে। শীঘ্রই আবার ভালো বগি যুক্ত করা হবে।