দেবদর্শন চন্দ, কোচবিহার : কোচবিহার জেলাজুড়ে ডেঙ্গুর প্রকোপ দেখা দেওয়ায় এমনিতেই সাধারণ মানুষ আতঙ্কে রয়েছেন। তার উপর গত কয়েকমাস ধরে নিয়মিত সাফাই না হওয়ায় শহরের বিভিন্ন এলাকায় নিকাশিনালা আবর্জনা ও জঙ্গলে ভরে গিয়েছে। শহরবাসীর একাংশের অভিযোগ, পুরসভার তরফে বড়ো রাস্তার ধারের কিছু নিকাশিনালা মাঝেমধ্যে সাফাই করা হলেও বিভিন্ন গলিতে থাকা বেশিরভাগ নিকাশিনালা অনেকদিন ধরে সাফাই করা হয়নি। তার ফলে মশার উপদ্রবে এলাকার বাসিন্দারা বিপাকে পড়েছেন। অথচ এ নিয়ে পুর কর্তপক্ষের কোনো হেলদোল নেই। জেলাজুড়ে যখন ডেঙ্গুর প্রকোপ দেখা দিয়েতে, তখন শহরের এই সমস্ত নিকাশিনালা জরুরি ভিত্তিতে সাফাই করা দরকার বলে শহরবাসী মনে করছেন।

কোচবিহার শহরের ১, ৩, ৮, ১২, ১৩, ২০ সহ বেশিরভাগ ওয়ার্ডে নিকাশিনালার অনেকদিন ধরে বেহাল দশা। ঠিকমতো পরিষ্কার না হওয়ার ফলে অনেক নিকাশিনালা এখন জঙ্গলে ঢেকে গিয়েছে। দূর থেকে দেখলে বোঝার উপায় নেই যে, সেখানে কোনো নিকাশিনালা আছে। অনেক নিকাশিনালায় দিনের পর দিন আবর্জনা জমে থাকায় দুর্গন্ধের জেরে পথচারী ও স্থানীয় বাসিন্দারা অতিষ্ঠ হযে উঠেছেন। ফলে ওই সমস্ত নিকাশিনালা মশার আঁতুড়ে পরিণত হয়েতে। ফলে পতঙ্গবাহিত রোগ ছড়ানোর আশঙ্কা করছেন সাধারণ মানুষ। দিনের পর দিন কেন আবর্জনা সাফাই হচ্ছে না তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন বাসিন্দা থেকে শুরু করে বিরোধীরা।

শহরের ১২ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দা শর্মিষ্ঠা নন্দী বলেন, শহরের বিভিন্ন এলাকার নিকাশি ব্যবস্থা একেবারেই ভেঙে পড়েছে। নিকাশি সাফাইযে ব্যর্থ হয়েছে কোচবিহার পুরসভা। অপর বাসিন্দা সুমন দাস বলেন, এলাকায় বেশ কয়েকমাস ধরে নর্দমায় ফগিং এবং ব্লিচিং ছিটোনোও হয় না। এর জেরে মশার উপদ্রব বাড়ছে। অপরদিকে, ডেঙ্গুর প্রকোপ নিযে শহরজুড়ে আতঙ্ক ছড়াচ্ছে। শীঘ্র নিকাশিনালার আবর্জনা এবং জমে থাকা প্লাস্টিক সাফাই করা হোক। সুব্রতলাল ঘোষ বলেন, শহরের বেশকিছু নিকাশিনালায় যেভাবে প্লাস্টিক জমে রয়েছে তাতে নালার মুখ বিভিন্ন জায়গায় আটকে গিয়েছে। জল বেরোতে না পেরে নর্দমাতেই জমে থাকছে।

এবিষয়ে পুরসভার বিরোধী দলনেতা মহানন্দ সাহা জানান, বিভিন্ন ওয়ার্ডে নিকাশি ব্যবস্থা একেবারেই ভেঙে পড়েছে। অনেকদিন ধরে সাফাই না করায় কোথাও নিকাশিনালায় জঙ্গল হয়ে গিয়েছে। আবার কোথাও প্লাস্টিক এবং আবর্জনা জমে জল বেরোনোই মুশকিল হযে পড়েছে। শহরের উন্নয়নে পুরসভা শুধুমাত্র টাকাই খরচ করছে। শহরবাসীর সমস্যা একইরকম থেকে যাচ্ছে। শহরের ১ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলার চন্দনা মহন্ত বলেন, সাফাইকর্মীর সমস্যা থাকায় বিভিন্ন এলাকার নিকাশিনালা নিয়মিত পরিষ্কার করা যাচ্ছে না। এছাড়া, কিছু মানুষ সেখানে আবর্জনা ফেলছে। বিষয়টি শীঘ্র খতিয়ে দেখা হবে।

যদিও সাফাইকর্মীর সমস্যার কথা মানেননি কোচবিহার পুরসভার চেয়ারম্যান ভূষণ সিং। শহরের বিভিন্ন এলাকায় নিকাশিনালার বেহাল দশার বিষযে জিজ্ঞাসা করা হলে  তিনি বলেন, পুরসভার সাফাইকর্মীর সেরকম কোনো সমস্যা নেই। তবে শহরের বিভিন্ন নর্দমায় আবর্জনা জমার জন্য স্থানীয়দের অসচেতনতাই দায়ী। তাঁরা বাড়ির আবর্জনা নর্দমায় ফেলছেন। পুরসভার তরফে লাগাতার সাফাই অভিয়ান করা হচ্ছে। যেসব ওয়ার্ডের নর্দমায় আবর্জনা আছে সেগুলি দ্রুত পরিষ্কার করা হবে।