সাড়ে তিন বছরেও রাস্তার হাল ফেরেনি ফালাকাটা কলেজ রোডের

405

সুকমল ঘোষ, ফালাকাটা : সাড়ে তিন বছরেও ফালাকাটা  কলেজ রোডের বেহাল অবস্থার হাল না ফেরায় সমস্যায় পড়েছেন কলেজের পড়ুয়া সহ ওই এলাকার বাসিন্দারা। শহরের গুরুত্বপূর্ণ ওই  পাকা সড়ক কয়েক বছর ধরেই বেহাল অবস্থায় রয়েছে। ফলে য়াতায়াতের ক্ষেত্রে চরম সমস্যায় পড়তে হচ্ছে কলেজের ছাত্রছাত্রী ও স্থানীয় বাসিন্দাদের। গত কয়েক মাসে ফালাকাটা শহরের বিভিন্ন এলাকার বেহাল রাস্তাগুলির প্রায় সবই মেরামতির কাজ শেষ হয়ে গিয়েছে। সেখানে ফালাকাটা কলেজ রোডের হাল কেন ফিরছে না তা নিয়ে প্রশ্ন উঠছে বিভিন্ন মহলে। ফালাকাটা কলেজে চার হাজারেরও বেশি ছাত্রছাত্রী রয়েছে। কলেজ পড়ুয়ারা ছাড়াও সংলগ্ন কলেজপাড়া ও কলেজডাঙ্গার কয়েকশো পরিবার ওই বেহাল পথ দিয়ে প্রতিনিয়ত যাতায়াত করেন। কিন্তু,  সড়কের বিভিন্ন অংশ খানাখন্দে ভরে গিয়েছে। এই পথে প্রচুর সংখ্যক মোটরবাইক, টোটো ও সাইকেল চলাচল করে। কিন্তু, খানাখন্দে ভরা ওই রাস্তাটির মেরামতির ব্যবস্থা না হওয়ায় প্রায়ই ছোটখাটো দুর্ঘটনা ঘটছে। শুধু তাই নয় বেহাল সড়কে পথ চলতে গিয়ে ধুলোর জেরেও নাকাল হতে হচ্ছে কলেজ পড়ুয়া ও স্থানীয় বাসিন্দাদের। এই নিয়ে কলেজের ছাত্রছাত্রী ও সংলগ্ন এলাকার বাসিন্দাদের মধ্যে ক্ষোভ বাড়ছে। ফালাকাটা কলেজের পড়ুয়া নিবেদিতা রায় বলেন, কলেজের রাস্তা কয়েক বছর ধরেই বেহাল। এমনকি কলেজ রোডের নাম শুনলে অধিকাংশ টোটোচালকই যেতে চান না। যেসব টোটো যায় তারাও দ্বিগুণ ভাড়া দাবি করে। অপর  কলেজ পড়ুয়া সত্যজিত্ বর্মন বলেন, এত গুরুত্বপূর্ণ একটা রাস্তা কেন কয়েক বছরেও মেরামতির ব্যবস্থা করা হচ্ছে না, তা বুঝতে পারছি না।

কলেজ রোডের বেহাল দশার কথা মেনে নিয়েছেন ফালাকাটা কলেজের অধ্যক্ষ হীরেন্দ্রনাথ ভট্টাচার্যও। তিনি বলেন, অনেকদিন ধরেই রাস্তাটির বিভিন্ন অংশ ভেঙে রয়েছে। সমস্যার বিষয়ে কলেজের তরফে পরিচালন সমিতির সভাপতি তথা ফালাকাটা পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতিকে জানিয়েছি। ফালাকাটা কলেজ পরিচালন সমিতির সভাপতি তথা ফালাকাটা পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি সুরেশ লালা বলেন, কলেজ রোডের ভাঙা রাস্তা মেরামতির জন্য প্রোজেক্ট তৈরি করে উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন দপ্তর ও জেলা পরিষদ, দুই জায়গাতেই পাঠানো হয়েছিল। এরপর উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন দপ্তর থেকে সেটি ফেরত পাঠানো হয়। তবে আলিপুরদুয়ার জেলা পরিষদ থেকে কলেজ রোডের মেরামতির অনুমোদন হয়ে গিয়েছে। শীঘ্রই ওই কাজের টেন্ডার ডাকা হবে বলে জেলা পরিষদ থেকে জানতে পেরেছি। টেন্ডার ও ওয়ার্ক অর্ডার সম্পন্ন হয়ে গেলে দ্রুত কলেজ রোডের মেরামতির কাজ শুরু করা হবে।

- Advertisement -