বৃষ্টির জল জমে ইংরেজবাজারের রাস্তা যেন জলাশয়

250

হরষিত সিংহ, মালদা : রাস্তা! নাকি জলাশয়! দিনকতক আগে ফাগুনের অকাল বৃষ্টিতে ইংরেজবাজার নিয়ন্ত্রিত বাজার সমিতির প্রবেশ পথে জল জমে তৈরি হয়েছে ছোটখাটো জলাশয়। জমা জল পচে যেমন চারিদিকে দুর্গন্ধ ছড়াচ্ছে, তেমনই ওই নোংরা জল পার হয়ে প্রতিদিন বাজারে আসতে হচ্ছে ক্রেতা-বিক্রেতাদের। অভিযোগ, নিয়ন্ত্রিত বাজারের পরিকাঠামো নিয়ে কোনও হেলদোল নেই প্রশাসনের। এই নিয়ে বাড়ছে ক্ষোভ।

মালদা শহরের মাধবনগর এলাকায় এই নিয়ন্ত্রিত বাজার আমবাজার নামে পরিচিত। জেলার মূল পাইকারি বাজার, প্রতিদিন জেলার ও জেলার বাইরের বহু ব্যবসায়ী এই বাজার থেকে বিভিন্ন সামগ্রী কিনে নিয়ে যান। কিন্তু অভিযোগ, বাজারে ঢোকার মূল রাস্তায় প্রায় এক সপ্তাহ ধরে জল আটকে পড়ায় এই বাজার থেকে মুখ ফেরাচ্ছেন সকলেই। লোকসানের মুখে পড়তে হচ্ছে নিয়ন্ত্রিত বাজারের সমস্ত ব্যবসায়ীদের। স্থানীয় ব্যবসায়ীদের অভিযোগ, বাজারে ঢোকার মুখে জল জমায় সমস্যা তাঁদের দীর্ঘদিনের। বাজারে ঢোকার রাস্তা তৈরির জন্য একাধিকবার জেলা প্রশাসনের কাছে লিখিতভাবে জানান নিয়ন্ত্রিত বাজার কমিটির সদস্যরা। কিন্তু এখনও প্রশাসন সমাধানের কোনও ব্যবস্থা নেয়নি। য়ার জেরে সময়ে অসময়ে সামান্য বৃষ্টি হলেই জল জমে যায়। ফলে সমস্যায় পড়েন স্থানীয় ও বাইরে থেকে আসা ক্রেতা-বিক্রেতারা। পণ্যবোঝাই গাড়ি যাতায়াত করতে পারে না । বাজারের বাইরে রাস্তার ওপর বিভিন্ন সামগ্রী গাড়ি থেকে ওঠানামা করাতে হয়। এতে ব্যবসায়ীদের খরচ বেড়ে যাচ্ছে। কাঁচা সবজি থেকে অন্যান্য সামগ্রী একাধিকবার গাড়িতে ওঠানামা করার ফলে নষ্টও হচ্ছে বেশি। ফলে ব্যবসায়ীদের লোকসানের মুখে পড়তে হচ্ছে।

- Advertisement -

ইংরেজবাজার নিয়ন্ত্রিত বাজার কমিটি সূত্রে জানা গিয়েছে, এক মাস আগে জেলাশাসক রাস্তার পরিস্থিতি খতিয়ে দেখে গিয়েছেন। তিনি দ্রুত সমস্যা সমাধানের আশ্বাস দিয়েছেন। কিন্তু এখনও  কোনও পদক্ষেপ নেওয়া হয়নি প্রশাসনের পক্ষে। বাজার কমিটির সম্পাদক নব সাহা জানান, আমরা প্রশাসনকে একাধিকবার রাস্তা তৈরির জন্য লিখিতভাবে আবেদন জানিয়েছি। গত এক মাস আগে জেলাশাসক বাজার চত্বর পরিদর্শনে এসেছিলেন। কিন্তু কাজ এখনও হচ্ছে না। বিষয়টি আমরা জেলা প্রশাসনকে ফের লিখিতভাবে জানাব।

প্রসঙ্গত, ২০০৬ সালে ইংরেজবাজার নিয়ন্ত্রিত বাজারটি চালু হয়। সেই সময় বাজারে ঢোকার রাস্তা ছিল। কিন্তু তারপর থেকে রাস্তাটি একবারের জন্য সংস্কার করা হয়নি। এমনকি রাস্তার দুইপাশে নেই কোনও নিকাশি ব্যবস্থা। পণ্যবোঝাই লরি যাতায়াত করায় বেহাল হয়ে পড়েছে রাস্তা। রাস্তায় দিনের পর দিন জল জমে থাকে। অনেক সময় জলের ওপর দিয়ে পণ্যবোঝাই গাড়ি যাতায়াত করতে গিয়ে দুর্ঘটনার কবলে পড়ছে। প্রায় প্রতিটি রাস্তায় উলটে যাচ্ছে টোটো থেকে তিন চাকার পণ্যবাহী ভ্যান রিকশা। রাস্তায় জল আটকে থাকায় জেলার বিভিন্ন প্রান্তের ব্যবসায়ীরা এই বাজারে আসতে চাইছেন না। রথবাড়ি নেতাজি মার্কেট থেকে পণ্য কিনে বাড়ি ফিরে যাচ্ছেন। যার জেরে লোকসানের মুখে পড়ছেন নিয়ন্ত্রিত বাজারের ব্যবসায়ীরা।

স্থানীয় ব্যবসায়ী বাদল কর্মকার জানান, এই রাস্তা দিয়ে গাড়ি চলতে পারছে না। আমাদের পণ্য গোডাউনে ঢোকাতে পারছি না। সমস্যা বাড়ছে। আমাদের একটাই দাবি, প্রশাসন যেন এই রাস্তাটি দ্রুত তৈরি করে দেয়। এতে আমাদের ব্যবসায়ীদের সুবিধা হবে। এপ্রসঙ্গে মালদা মার্চেন্টস্ চেম্বার অফ কমার্সের জেলা সম্পাদক জয়ন্ত কুণ্ডু বলেন, নিয়ন্ত্রিত বাজারের রাস্তায় জল জমা দীর্ঘদিনের সমস্যা। আমরা প্রশাসনকে লিখিতভাবে বারবার জানিয়েছি। কিন্তু প্রশাসন কোনও উদ্যোগ গ্রহণ করছে না। বর্ষার আগে রাস্তা তৈরি না হলে আমরা পথে নামব।