দিলীপকুমার তালুকদার, বুনিয়াদপুর : অনেকবার আবেদন করা হয়েছে। কিন্তু বংশীহারীর জোড়দিঘি থেকে বদলপুর হয়ে দিঘি পর্যন্ত রাস্তাটি সংস্কারে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি থেকে শুরু করে প্রশাসনের কোনো হেলদোল নেই। এনিয়ে স্থানীয় বাসিন্দাদের মধ্যে ক্ষোভ জমতে শুরু করেছে। তাঁদের অভিযোগ, প্রতিবার ভোটের সময় এলে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতা-নেত্রীরা রাস্তা মেরামতের প্রতিশ্রুতি দেন। কিন্তু ভোট পার হয়ে গেলে আর কারও দেখা মেলে না। এলাকার সকলে তাই আন্দোলনে নামার কথাও ভাবতে শুরু করেছেন। বংশীহারী ব্লক প্রশাসনের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, রাস্তাটি সংস্কার করার জন্য প্রযোজনীয় পদক্ষেপ করা হবে।

বাম আমলের শেষের দিকে বংশীহারী ব্লকের ব্রজবল্লভপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের জোড়দিঘি থেকে বদলপুর হয়ে দিঘি পর্যন্ত রাস্তাটি তৈরি করে দেওয়া হয়েছিল। প্রায় চার কিলোমিটার দীর্ঘ এই রাস্তা দিয়ে প্রতিদিন জোড়দিঘি, গোপালপুর, রাজাপুর, দিঘি, বংশীহারী, ডহুয়াকুড়ি প্রভতি গ্রামের কয়েক হাজার মানুষ চলাচল করে থাকেন। কিন্তু এই রাস্তা দিয়ে অতিরিক্ত ট্র‌্যাক্টর চলাচল করায় সেটি ভেঙে গিয়েছে। কয়েক বছর আগেও এই রাস্তা দিয়ে ছোটো গাড়ি চলাচল করত। কিন্তু বর্তমানে সেই রাস্তার দশা এতটাই খারাপ যে, কোনো গাড়িই এই রাস্তা দিয়ে আর যাতায়াত করতে চায় না।  স্থানীয় বাসিন্দা সামশুল সরকার বলেন, এই রাস্তা দিয়ে প্রতিদিন প্রচুর লোক  জোড়দিঘি, বুনিয়াদপুর, বদলপুরে যাতায়াত করে থাকেন। এছাড়াও এই রাস্তা দিয়ে নারায়ণপুর হাইস্কুল, বদলপুর হাইস্কুল, বংশীহারী হাইস্কুল এবং বংশীহারী গার্লস হাইস্কুলের প্রচুর ছাত্রছাত্রীও চলাচল করে থাকে। কিন্তু রাস্তা খারাপ থাকার জন্য প্রতিনিয়ত তাদের সকলকে সমস্যায় পড়তে হয়। ভবেশ দাস নামে এক বাসিন্দা বলেন, কেউ অসুস্থ হলে বা  কোনো প্রসূতিকে হাসপাতালে নিয়ে যেতে গিয়ে প্রচণ্ড সমস্যা হয়। অনেক অনুনয়, বিনয় করে  কোনো গাড়িকে গ্রামে নিয়ে আসতে হয়। বহুবার নেতারা রাস্তাটি মেরামত করার আশ্বাস দিয়েছেন। কিন্তু ভোট পার হলে আর কারও দেখা মেলে না। দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা পরিষদের প্রাক্তন কর্মাধ্যক্ষ তথা সিপিএম নেতা রঞ্জন মিত্র বলেন, রাস্তাটি খারাপ থাকার জন্য সকলকেই সমস্যার মধ্যে পড়তে হয়। প্রশাসনের কাছে অনুরোধ করব, সাধারণ মানুষের কথা মাথায় রেখে প্রশাসন দ্রুত ব্যবস্থা নিক। বংশীহারীর বিডিও সুদেষ্ণা পাল বলেন, আমি রাস্তাটির বেহাল দশার কথা জানতাম না। বিষয়টি খোঁজ নিয়ে সমস্যা মেটানোর জন্য প্রশাসনের ওপর মহলে জানাব।