ফের দুঃসংবাদ বলিউডে, প্রয়াত সরোজ খান

414

মুম্বাই: ফের দুঃসংবাদ বলিউডে। ৭১ বছর বয়সে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করলেন বলিউডের প্রখ্যাত কোরিওগ্রাফার সরোজ খান। শেষ হয়ে গেল বলিউডের এক সোনালি যুগ। পিছনে থেকে গেল এক উজ্জ্বল কর্ম ইতিহাস। প্রবল শ্বাসকষ্টের সমস্যা নিয়ে গত ১৭ জুন সরোজ খান ভর্তি হন মুম্বইয়ের গুরু নানক হাসপাতালে। বৃহস্পতিবার গভীর রাতে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয় এই কিংবদন্তী কোরিওগ্রাফারের। শুক্রবার সকালে এই খবর প্রকাশ্যে আসতেই শোকের ছায়া নেমে এসেছে বিনোদন জগতে। সরোজ খান রেখেগেলেন, তাঁর স্বামী, ছেলে এবং দুই মেয়েকে।

স্বরোজ খান ১৯৪৮ সালের ২২ নভেম্বর মুম্বই শহরে জন্ম গ্রহণ করেন। তাঁর আসল নামছিল নির্মলা নাগপাল। মাত্র তিন বছর বয়সে শিশু শিল্পী হিসেবে বলিউডে তাঁর কেরিয়ারের সূচনা। স্বাধীন কোরিওগ্রাফার হিসেবে তাঁর কাজ শুরু ১৯৭৪ সালে গীতা মেরা নাম ছবি দিয়ে। তবে তাঁর কেরিয়ার উড়ান নেয় শ্রীদেবী এবং মাধুরী দীক্ষিতের সঙ্গে কাজের পরই। ১৯৮৭ সালে মিস্টার ইন্ডিয়া, ১৯৮৬ সালের নাগিনা, ১৯৮৯ সালে চাঁদনি, ১৯৮৮ সালে তেজাব এবং ১৯৯০ সালে থানেদার ছবি তাঁকে বলিউডে প্রতিষ্ঠা দেয়। দিলওয়ালে দুলহানিয়া লে জায়েঙ্গে, হাম দিল দে চুকে সনম, দেবদাস, জব উই মেট, মণি কর্নিকার মতো ছবির নাচের দৃশ্যও উজ্জ্বল তাঁর অবদানের জন্যেই। ২০০৫ থেকে ২০১০ সাল পর্যন্ত সরোজ খান একটি টিভি রিয়ালিটি শো-এর বিচারকও ছিলেন। বহু বছরের বিরতির পর ফের তিনি তাঁর পছন্দের অভিনেত্রী মাধুরী দীক্ষিতের সঙ্গে কাজ করেন ‘কলঙ্ক’ ছবিতে। সেই তাঁর শেষ কাজ।

- Advertisement -

তিনি তিন বছর বয়সে শিশু শিল্পী হিসাবে কেরিয়ার শুরু করলেও ১৯৫০-এর দশকে তিনি যোগ দেন ব্যাক আপ ডান্সার হিসেবে। তত্‍কালীন প্রখ্যাত কোরিওগ্রাফার বি সোহনলালের সঙ্গেই দীর্ঘ সময় কাজ করেছেন । তাঁকেই তিনি আজীবন নিজের মাস্টারজী মেনে এসেছেন।

ইরফান খান, ঋষি কাপুর, ওয়াজিদ খান এবং গত মাসে সুশান্ত সিং রাজপুতের অকালমৃত্যুতে এমনিতেই বিষণ্ণ বলিউড। তার মধ্যে সরোজ খানের প্রয়াণ যেন অনেককেই অভিভাবকহীন করে দিল। তাঁর মৃত্যুতে যেন ইতি ঘটল বলিউডের একটা যুগের।