আলিপুরদুয়ার জেলা হাসপাতালে যাওয়ার রাস্তা দীর্ঘদিন ধরে বেহাল

244

প্রিয়া সিংহ, আলিপুরদুয়ার : আলিপুরদুয়ার শহরের ১৩ নম্বর ওয়ার্ডে আলিপুরদুয়ার জেলা হাসপাতাল সংলগ্ন রাস্তা দীর্ঘদিন ধরে বেহাল। এর ফলে সাধারণ বাসিন্দাদের পাশাপাশি হাসপাতালে আসা রোগীদের সমস্যায় পড়তে হচ্ছে। এছাড়া গাড়ি নিয়ে যেতেও সমস্যায় পড়তে হয়। পুরভোটের আগে বিষয়টি নিয়ে ইশ্যু করতে চাইছে বিরোধীরা। তাদের দাবি, হাসপাতাল সংলগ্ন রাস্তাটি সংস্কার করা প্রয়োজন ছিল কিন্তু পুরসভার তরফে কোনও ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। বিষয়টি নিয়ে ১৩ নম্বর ওয়ার্ডের প্রাক্তন কাউন্সিলার মায়া মজুমদারকে বারবার ফোন করা সত্ত্বেও তিনি ফোন তোলেননি।

আলিপুরদুয়ার শহরের ১৩ নম্বর ওয়ার্ডের জেলা হাসপাতাল সংলগ্ন রাস্তাটি অন্যতম জনবহুল এলাকা। রাস্তার দুপাশে সার দিয়ে ওষুধের দোকান, ডায়াগনস্টিক সেন্টার রয়েছে। কিছু দোকান এগিয়ে আসায় রাস্তাটি অনেক জায়গাতেই সংকীর্ণ হয়ে গিয়েছে। অনেক জায়গায় রাস্তার পিচের আস্তরণ উঠে পাথর বেরিয়ে গিয়েছে। এর মধ্যেই আবার রাস্তার কিছু জায়গায় আবর্জনা ফেলে রাখা হয়। ফলে সব মিলিয়ে ওই রাস্তা দিয়ে যাতায়াত করতে রীতিমতো সমস্যায় পড়তে হয় স্থানীয়দের। হাসপাতাল ছাড়াও ওই রাস্তায় নার্সিংহোমও রয়েছে। ভাঙা রাস্তা দিয়ে রোগীদের নিয়ে য়েতে গিয়ে সমস্যায় পড়তে হয় পরিজনদের। বিরোধীদের অভিযোগ, তণমূল কংগ্রেস নেতাদের একাংশের মদতে ওই রাস্তার কিছু দোকান রাস্তা দখল করে নিচ্ছে। পুরভোটের প্রচারে এই বিষয়টিও তুলে ধরা হবে বলে বিরোধীরা জানিয়েছে। স্থানীয় বাসিন্দা রুমকি দেবনাথ বলেন, বর্ষায় রাস্তায় ভাঙা জায়গাগুলোতে জল জমে থাকে। তখন যাতায়াত করতে আরও সমস্যায় পড়তে হয়। টোটোচালক বিপ্লব সাহা বলেন, হাসাপাতালে বহু মানুষকে নিয়ে আসতে হয়। ভাঙা রাস্তা দিয়ে টোটো নিয়ে যেতে সমস্যায় পড়তে হয়। রাস্তা সরু হয়ে যাওয়ায় পাশাপাশি দুটো গাড়ি চলাচল করতে পারে না। প্রশাসন এদিকে নজর দিলে আমাদের উপকার হয়। অটোচালক প্রসূন রায় বলেন, হাসপাতাল ছাড়াও নার্সিংহোমের রোগীদের নিয়ে যেতে হয় আমাদের। রাস্তা ভাঙা হওয়ায় রোগীরা আরও অসুস্থ হয়ে পড়েন। স্থানীয় বিজেপি নেতা রমাশংকর মাহাতো বলেন, তৃণমূল কংগ্রেস পরিচালিত পুরবোর্ডের তরফে কোনও কাজ করা হয়নি। হাসপাতাল রোড সংলগ্ন রাস্তার সম্প্রসারণও হয়নি। ভোটে এই নিয়ে প্রচার করা হবে। জেলা যুব কংগ্রেস সভাপতি শান্তনু দেবনাথ বলেন, প্রাক্তন কাউন্সিলারের কাজ নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। সাধারণ মানুষের স্বার্থে দ্রুত রাস্তা মেরামত করা প্রয়োজন।

- Advertisement -