বেহাল দশা বাঙ্গালবাড়ী স্বাস্থ্য কেন্দ্রের, পরিষেবা নিয়ে সরব বিরোধী দল

74

হেমতাবাদ: উত্তর দিনাজপুরের হেমতাবাদের বাঙ্গালবাড়ী প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রের বেহাল অবস্থা বিধানসভা নির্বাচনের অন্যতম ইস্যু। বিরোধী রাজনৈতিক দলের নেতারা ইতিমধ্যেই স্বাস্থ্য কেন্দ্রটির ভেঙে পড়া পরিষেবা নিয়ে সরব হয়েছেন। এই স্বাস্থ্য কেন্দ্রের ওপর নির্ভর করে সাহাপুর, ধবাইল, শিবপুর, গোবরা, ভাটশিয়া সহ অন্যান্য গ্রামের বাসিন্দারা। তাঁদের বক্তব্য, স্বাস্থ্য কেন্দ্রটিতে ঠিক মত পরিষেবা পাওয়া যায়না। রোগীদের অন্যত্র রেফার করা হয়। শতাব্দীপ্রাচীন এই স্বাস্থ্যকেন্দ্রকে স্টেট জেনারেল হাসপাতাল উন্নত করে দেওয়ার দাবি উঠছে গ্রামবাসীদের মধ্যে। স্থানীয় বাসিন্দা নজরুল ইসলাম বলেন, ‘জন্মের পর থেকেই এই স্বাস্থ্যকেন্দ্র দেখছি। সেই সময় গ্রামীণ হাসপাতাল তৈরি হয়নি। সিপিএম যতটুকু করেছে তৃণমূল কিছুই করেনি।‘

হেমতাবাদ বিধানসভা কেন্দ্রের তৃণমূলের ব্লক সভাপতি শেখর রায় বলেন, ‘আগের তুলনায় প্রাথমিক স্বাস্থ্য কেন্দ্রের পরিষেবা অনেক বেশি উন্নত হয়েছে। বিরোধীরা এসব নিয়ে অকারণেই হইচই করছে।‘

- Advertisement -

সিপিএমের প্রার্থী ভূপেন বর্মন বলেন, ‘স্বাস্থ্য কেন্দ্রের পরিষেবা উন্নতি করার জন্য প্রশাসন কোনও উদ্যোগ নেয়নি। এখানে পর্যাপ্ত বেডের যেমন অভাব রয়েছে তেমনি চিকিৎসকের অভাব রয়েছে।‌ বাঙ্গালবাড়ী স্বাস্থ্য কেন্দ্রের জন্য রায়গঞ্জের প্রাক্তন সাংসদ মহম্মদ সেলিমের সাংসদ তহবিলের টাকায় একটি প্রতীক্ষালয় বানিয়ে দেওয়া হয়েছিল। তা দখল করে ওষুধ সহ চিকিৎসার যন্ত্রপাতি রাখা হচ্ছে।‘

হেমতাবাদ বিধানসভা কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী চাঁদিমা রায় বলেন, ‘প্রায় ১০০ বছরের পুরোনো স্বাস্থ্য কেন্দ্র ১৭টি মৌজার বাসিন্দার ওপর নির্ভরশীল। খাতায়-কলমে চিকিৎসক তিনজন থাকলেও বাস্তবে কেউই থাকেনা। আমাদের সরকার ক্ষমতায় আসলে উন্নত করা হবে। পাশাপাশি ব্লাড ব্যাংক সহ অত্যাধুনিক চিকিৎসার যন্ত্রপাতি আনার ব্যবস্থা করা হবে।‘

যদিও এই সমস্ত অভিযোগ মানতে নারাজ হেমতাবাদ বিধানসভায় তৃণমূলের প্রার্থী সত্যজিৎ বর্মন। তার বক্তব্য, সিপিএমের ৩৪ বছরের শাসনকালে যে পরিষেবা পাওয়া যেত তার থেকে বহুগুণে ভালো পরিষেবা মেলে। সেই সময় চিকিৎসকদের কোয়াটার ভাঙাচোরা ছিল। গ্রামবাসীরা জানে কোনটা ঠিক আর কোনটা ভুল।‘