ঢাকা, ৯ নভেম্বরঃ শক্তিশালী বুলবুল ইতিমধ্যে আছড়ে পড়েছে পশ্চিমবঙ্গের সাগরদ্বীপে। মধ্যরাতেই সুন্দরবন ও বাংলাদেশের আছড়ে পড়ার কথা বুলবুলের। তাই পশ্চিমবঙ্গের পাশপাশি বুলবুল মোকাবিলায় নেমে পড়েছে ওপার বাংলার প্রশাসনও। ইতিমধ্যে দেশের তিন বন্দরে সতর্ক বার্তা জারি করেছে ওই দেশের প্রশাসন। বাংলাদেশের উপকূলবর্তী জেলা ভোলা, বরগুনা, পটুয়াখালী, বরিশাল, পিরোজপুর, ঝালকাঠি, বাগেরহাট, খুলনা, সাতক্ষীরা এবং সংলগ্ন দ্বীপ ও চরগুলিতে ৭ নম্বর বিপদ সংকেতের আওতায় রাখা হয়েছে। সেইসঙ্গে চট্টগ্রাম বন্দর-সহ চট্টগ্রাম, নোয়াখালী, লক্ষ্মীপুর, ফেনী, চাঁদপুরে সতর্ক বাতা জারি করেছে প্রসাসন। সেইসঙ্গে নদীপথ পরিবহনেও জারি হয়েছে নিষেধাজ্ঞা।
বাংলাদেশের দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী এনামুর রহমান বলেন, দেশের মোট ৭টি জেলাকে ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। এগুলি হল খুলনা, সাতক্ষীরা, বাগেরহাট, বরগুনা, পটুয়াখালী, পিরোজপুর ও ভোলা। ইতিমধ্যে ৫৬ হাজার স্বেচ্ছাসবককে উদ্ধার ও জরুরি ত্রাণ কাজের জন্য প্রস্তুত রাখা হয়েছে। প্রতিটি জেলায় খোলা হয়েছে নিয়ন্ত্রণ কক্ষ। আশ্রয় কেন্দ্রগুলোতে ২০০০ প্যাকেট করে শুকনো খাবার পৌঁছে দেওয়া হয়েছে। সচেতনতা সৃষ্টির জন্য স্বেচ্ছাসেবকরা মাইকে এবং ২২টি কমিউনিটি রেডিওর মাধ্যমে সতর্কবার্তা প্রচার করছে।