দ্বিতীয় দিনে ব্যাংক ধর্মঘট, চরম ভোগান্তির আশঙ্কা

80
ছবি: নিজস্ব

কলকাতা: কেন্দ্রীয় সরকারের বেসরকারিকরণের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে লাগাতার আন্দোলনে নামার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন ব্যাংক ও বিমা সংস্থারকর্মীরা। সেই সিদ্ধান্তের জেরে সোমবার, মঙ্গলবার ব্যাংক ইউনিয়নগুলির ডাকে দেশ জুড়ে ধর্মঘট চলবে। বুধবার আবার ধর্মঘট ডাকছেন সাধারণ বিমা শিল্প। বৃহস্পতিবার ধর্মঘট করবেন এলআইসির কর্মীরা। অর্থাৎ মোট চারদিন ধর্মঘট চলবে ব্যাংক ও বিমাক্ষেত্রে। এই ধর্মঘটের ফলে রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকের এটিএম-ও বন্ধ। এরজেরেই ভোগান্তিতে পড়েছেন গ্রাহকরা। ধর্মঘটীদের বক্তব্য এই বেসরকারিকরণে সঞ্চিত অর্থে আর ‘গ্যারান্টি’ থাকছে না। যদিও সরকার তরফে বক্তব্য, ব্যাংকে তালা পড়লে অন্তত পাঁচ লক্ষ টাকার আমানত বিমা পাবেন গ্রাহক। কিন্তু প্রশ্ন থাকছে, যার এর থেকে বেশি অর্থ রয়েছে ব্যাংকে, ঝাঁপ বন্ধ হলে উদ্বিষ্ট ব্যক্তি কী করবেন। যদিও বেসরকারি ব্যাংকগুলির ইউনিয়ন এই ধর্মঘটে যোগ দিচ্ছে না, পরিষেবা সচল রাখার আশ্বাস দিয়েছেন তাঁরা।

এই ধর্মঘট হচ্ছে ইউএফবিইউয়ের ছাতার তলায়। এবার বাজেটেই মোদি সরকারের তরফে জানানো হয় আরও দুটি ব্যাংককে বেসরকারি হাতে তুলে দিতে চাইছে সরকার। ছেড়ে দেওয়া হবে একটি বিমা সংস্থাকেও। এছাড়া এলআইসির শেয়ারও বিক্রির কথা ঘোষণা করা হবে। এই বেসরকারিকরণের প্রতিবাদ জানিয়েই পথে নেমেছে ব্যাংক কর্মীরা। অনেকটা কৃষি আন্দোলনের মতোই লাগাতার আন্দোলন চালিয়ে নিয়ে যেতে চাইছেন তাঁরা।

- Advertisement -