একইসঙ্গে মৃত্যু বাবা-ছেলের, পরিবারের পাশে বিধায়ক

107

আসানসোল: ডিভিসি লেফট ব্যাংকে এলাকার বাসিন্দা বাবা ও ছেলের একদিনে কয়েক ঘণ্টার ব্যবধানে মৃত্যু হয়েছিল। বাবা ও ছেলের একসঙ্গে মৃত্যু হওয়ার সেই খবর পাওয়ার পরে অসহায় পরিবারের পাশে এসে দাঁড়ালেন বারাবনির বিধায়ক বিধান উপাধ্যায়। সোমবার লেফট ব্যাংকের বাসিন্দা ধীরাজ মণ্ডলের ছেলে ক্রিস তার পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে মাইথনের কাছে বরাকর নদীর অমর ঝর্ণাতে স্নান করতে গিয়েছিল। সেই সময় ক্রিস জলে ডুবে যায়। পরিবারের সদস্য তাকে বাঁচানোর করেছিলেন। কিন্তু তাঁরা পারেননি। জলে ডুবে মৃত্যু হয় ক্রিসের। পরে খবর পেয়ে সালানপুর থানার পুলিশ আসে। স্থানীয় বাসিন্দাদের সাহায্যে পুলিশ নদী থেকে ক্রিসের মৃতদেহ উদ্ধার করে। বাইরে কাজ করতে যাওয়া ধীরাজ মণ্ডল সেই খবর জানতে পেরে ভেঙে পড়েন। তিনি কুলটি থানার চৌরঙ্গী ফাঁড়ি এলাকায় রাস্তায় অচৈতন্য হয়ে লুটিয়ে পড়েন। তাঁকে উদ্ধার করে আসানসোল জেলা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে চিকিৎসক মৃত বলে ঘোষণা করেন। প্রাথমিক তদন্তের পরে পুলিশের অনুমান, ছেলের জলে ডুবে মৃত্যুর খবর জানার পরে তিনি হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যান।

বুধবার বিধায়ক বিধান উপাধ্যায় লেফট ব্যাংক কলোনির বাসিন্দ ধীরাজ মণ্ডল ও ক্রিসের বাড়িতে আসেন। তিনি মৃত ধীরাজ মণ্ডলের স্ত্রী শম্পা মণ্ডল ও তাঁর দুই মেয়ের সঙ্গে দেখা করেন। দুই মেয়ের পড়াশোনার দায়িত্ব, মাসিক কিছু আর্থিক সহায়তা ও বাড়ি মেরামত করার প্রতিশ্রুতি দেন বিধায়ক।

- Advertisement -