জলপাইগুড়ি শহরে আরএসএস অফিস করতে বাধা, উত্তেজনা

248

জলপাইগুড়ি: জলপাইগুড়ি শহরে আরএসএস-এর কার্যালয় করতে বাধা স্থানীয়দের। আরএসএসের কর্মী-সমর্থকেরা সেই কার্যালয় পরিষ্কার করতে এলে ধুন্ধুমার কাণ্ড বেধে যায়। ঘটনাটি ঘটেছে, শুক্রবার জলপাইগুড়ি শান্তিপাড়া এলাকায়। ইতিমধ্যে, ঘটনাস্থলে কোতয়ালী থানার বিশাল পুলিশ বাহিনী এসে কার্যালয় সংস্কার ও সাফাই-এর কাজ বন্ধ করে দেয়। এরপরই উত্তেজনা চরমে পৌঁছোলে তালা মেরে অফিস বন্ধের নির্দেশ দিয়ে, এলাকায় ১৫৪ ধারা লাগু করে প্রশাসন।

এদিন জলপাইগুড়ি শান্তিপাড়ায় নরেন বারেলিয়া তাঁর একটি বাড়ি আরএসএস-এর শাখা অফিস করার জন্য জলপাইগুড়ি সেবা ট্রাস্টকে দিয়েছিলেন ২০২০ সালের শুরুতে। করোনা ও লকডাউনের কারনে এই বাড়িটিতে আরএসএস তাদের কার্যালয় করতে পারেনি। গত তিন দিন আগে সংগঠনের পক্ষ থেকে জেলা পুলিশ সুপারকে তাদের কার্যালয় করার বিষয়ে অবগত করে বলে দাবি সংগঠনে। সেই কথা মতো এদিন আরএসএসের প্রায় ৫০জন কর্মীরা তাদের এই কার্যালয় অফিস সাফাই করার জন্য বাড়িটিতে যায় সাফাই করতে। স্থানীয় বাসিন্দারা আরএসএস কর্মীদের সাফাই করতে বাধা দেয়। কাজে বাধা দেওয়ায় এলাকায় উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে আসেন কোতয়ালী থানার বিশাল পুলিশ বাহিনী।

- Advertisement -

স্থানীয় যুবক বিশ্বজিৎ মজুমদার বলেন, ‘এই বাড়ির মালিক এলাকার যুবকদের এই বাড়িটি দেখভাল করা কথা বলে গিয়েছিল সে কারনেই আজ হটাৎ কিছু লোক এসে তালা ভেঙ্গে ঘরে ঢুকছিল সেকারনেই আমরা বাধা দিয়েছি। এখন প্রশাসন দেখবে তাদের কাছে যদি বৈধ কাগজ যদি থাকে তাহলে আমাদের কোনো আপত্তি নেই।’

অন্যদিকে, জলপাইগুড়ি সেবা ট্রাস্টের একজন ট্রাস্টি ও বাড়ির মালিকের ভাই যাকে এই বাড়ির পাওয়ার অফ অ্যাটর্নি দেওয়া অজয় কুমার সিঙ্গানিয়া বলেন, ‘আমাদের কাছে এই বাড়ির সমস্ত বৈধ্য কাগজ রয়েছে। আমরা প্রশাসনকে জানিয়ে আমাদের কার্যালয়ের সাফাই অভিযান করতে এসেছি স্থানীয় কিছু মানুষ এই কাজে বাধা দিচ্ছে। আমাদের প্রশাসনের উপর সম্পূর্ণ ভরসা রয়েছে।’

পাশাপাশি, জলপাইগুড়ি সদর ডিএসপি সমীর পাল বলেন, ‘একটা সমস্যা হয়েছে আমরা আপাতত কাজ বন্ধ করে দিয়েছি। গোটা বিষটি তদন্ত করে পরবর্তীতে পদক্ষেপ নেওয়া হবে।’