সামিকে ছাড়াই শেষ দুই টেস্টের দল ঘোষণা ভারতের

চেন্নাই : প্রত্যাশা ছিল। আলোচনাও হল। কিন্তু তারপরও আহমেদাবাদে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে শেষ দুই টেস্টের ভারতীয় দলে মহম্মদ সামি ও নভদীপ সাইনি সুযোগ পেলেন না। ফিটনেসের কারণে উমেশ যাদবকেও দলে রাখা হয়নি। বিসিসিআই সূত্রে জানা গিয়েছে, উমেশের ফিটনেস পরীক্ষা হবে। পাশ করলে তিনি স্কোয়াডে থাকবেন। না হলে শার্দূল ঠাকুরকে স্কোয়াডে নেওয়া হবে।

 

- Advertisement -

ভারত বনাম ইংল্যান্ড সিরিজের ফল এখন ১-১। প্রথম টেস্টে হারের পর সাম্প্রতিক অতীতের ধারা বজায় রেখে দারুণ কামব্যাক করেছেন কোহলিরা। ২৪ ফেব্রুয়ারি থেকে আহমেদাবাদের মোতেরার সর্দার বল্লভভাই প্যাটেল স্টেডিয়ামে শুরু হচ্ছে সিরিজের তৃতীয় টেস্ট। গোলাপি বলে দিন-রাতের এই টেস্ট ম্যাচকে কেন্দ্র করে ইতিমধ্যেই প্রবল আগ্রহ তৈরি হয়েছে। ১ লাখ ১০ হাজার আসনের স্টেডিয়ামে প্রতিদিনই গ্যালারির অর্ধের ভর্তি থাকবে। মনে করা হচ্ছে, কোহলিদের জন্য গলা ফাটাতে রোজই ৫৫ হাজার দর্শক থাকবেন গ্যালারিতে।

স্থানীয় ক্রিকেট সংস্থার তরফে মোতেরার প্রথম আন্তর্জাতিক ম্যাচকে স্মরণীয় করে রাখার জন্য নানা বিনোদনের ব্যবস্থাও হচ্ছে বলে খবর। খেলার প্রথম দিন দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শা-দের মাঠে থাকার কথা। এমন উৎসবের পরিবেশে খেলা শুরুর আগে আজ শেষ দুই টেস্টের জন্য ১৭ সদস্যের দল ঘোষণা করেছেন জাতীয় নির্বাচকরা। দলে তেমন কোনও চমক নেই স্বাভাবিকভাবেই। ঘোষিত দল এরকম : কোহলি (অধিনায়ক), রোহিত, পূজারা, মায়াঙ্ক, শুভমান, রাহানে (সহ অধিনায়ক), রাহুল, পান্ডিয়া, পন্থ, ঋদ্ধিমান, অশ্বীন, কুলদীপ, অক্ষর, ওয়াশিংটন, ইশান্ত, বুমরাহ সিরাজ।

নেট বোলার হিসেবে ভারতীয় দলের সঙ্গে রাখা হয়েছে অঙ্কিত রাজপুত, আবেশ খান, সন্দীপ ওয়ারিয়ার, কৃষ্ণাপ্পা গৌতম, সৌরভ কুমারদের। স্ট্যান্ডবাই হিসেবে রয়েছেন কেএস ভরত ও রাহুল চাহার। প্রাক্তন বাংলা অধিনায়ক অভিমন্যু ঈশ্বরণ, শাহবাজ নাদিমদের রাজ্য দলের হয়ে বিজয় হাজারে খেলার জন্য রিলিজ দেওয়া হয়েছে। জানা গিয়েছে, বৃহস্পতিবার চেন্নাই থেকে টিম ইন্ডিয়া আহমেদাবাদ পৌঁছে যাচ্ছে। বিসিসিআই সচিব জয় শা-র শহরে কোহলিদের পৌঁছানোর আগে সেখানকার বাইশ গজের চরিত্র নিয়ে জল্পনা চলছে প্রবলভাবে।

প্রাথমিকভাবে মনে করা হয়েছিল, মোতেরার বাইশ গজে পেসাররা সাহায্য পেতে পারেন। কিন্তু দল ঘোষণার পর মনে করা হচ্ছে, চিপকের মতোই ঘূর্ণি উইকেট হতে চলেছে মোতেরায়। যদিও আহমেদাবাদে সন্ধ্যা ও রাতের দিকের শিশির গোলাপি বলে দিন-রাতের টেস্টে প্রভাব ফেলতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে।