ঝোপের মাঝে বাজারের কমিউনিটি শৌচালয়, চাবি হস্তান্তরে গিয়ে কড়া ধমক দিলেন বিডিও

231

ফাঁসিদেওয়া, ২৭ জুলাইঃ গোয়ালটুলি বাজারের কমিউনিটি শৌচালয় তৈরির পর সোমবার বিডিও নিজে গিয়ে চাবি হস্তান্তর করলেন। বাজারের শৌচালয় বলেই কি ঝোপের মধ্যে তৈরি করতে হবে? পরিদর্শনে গিয়ে বাজার কমিটিকে এমন সুড়েই ফাঁসিদেওয়ার বিডিও সঞ্জু গুহ মজুমদার কড়া ধমক দিলেন। পাশাপাশি, শৌচালয়ে যাওয়ার রাস্তা পরিষ্কার রাখার নির্দেশ দিয়েছেন। গোয়ালটুলি বাজারে মূলত সপ্তাহে ২ দিন হাট বসে। বিভিন্ন প্রান্ত থেকে বিক্রেতারা সেখানে হাজির হন। প্রচুর মানুষের ভিড় হয়। দীর্ঘদিন থেকেই ওই বাজারে শৌচালয় না থাকায় মানুষ সমস্যায় পড়তেন। বাজার কমিটির অনুরোধে সেখানে শৌচালয় তৈরি করে দেওয়া হয়েছে। মিশন নির্মল বাংলা প্রকল্প থেকে প্রায় ২ লক্ষ টাকা ব্যায়ে সেখানে শৌচালয়ের কাজ ইতিমধ্যেই শেষ হয়েছে। কিন্তু, শৌচালয়ের রাস্তা আটকে দেওয়া হয়েছে। তা দেখেই বিডিও ক্ষোভ প্রকাশ করেন। তবে, পরে শৌচালয়ের চাবি বাজার কমিটির হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে। এদিন ফাঁসিদেওয়ার বিডিও সঞ্জু গুহ মজুমদার, জয়েন্ট বিডিও আর রমচু, ফাঁসিদেওয়া পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি মহম্মদ বসিরুদ্দীন, পঞ্চায়েত সমিতির পুর্ত কর্মাধ্যক্ষ চন্দ্রমোহন রায়ের উপস্থিতিতে চাবি হস্তান্তর হয়েছে। অন্যদিকে, এদিন ফাঁসিদেওয়া বাঁশগাও কিশমত গ্রাম পঞ্চায়েতের কদমীজোত সংসদে সাহানন্দ হেচারি বাজারে গিয়ে বিডিও সেখানেও বাজার কমিটির হাতে কমিউনিটি শৌচালয়ের চাবি তুলে দিয়েছেন। ফাঁসিদেওয়ার বিডিও সঞ্জু গুহ মজুমদার জানিয়েছেন, ২টি বাজারের বিভিন্ন জায়গা থেকে কৃষক এবং ব্যবসায়ীরা আসেন। শৌচালয় না থাকায় তাঁরা সমস্যায় পড়তেন। আর্জি জানানোর পর শৌচালয় নির্মাণ করে দেওয়া হয়েছে। উভয় ক্ষেত্রেই পে এন্ড ইউজ টয়লেট নির্মাণ করে দেওয়া হয়েছে। বাজার কমিটিকে মাসে কিছু পরিমাণ টাকা গ্রাম পঞ্চায়েতকে দিতে হবে। শৌচালয়ের সমস্যা এখন আর বাজারের ব্যবসায়ীদের পোহাতে হবে না বলে হেচারি বাজার কমিটির সম্পাদক মহম্মদ সারেক আলি জানিয়েছেন।