বায়ার্নের কোচ বিতর্কে ক্ষুব্ধ কাইজার

মিউনিখ : ক্লাবের দায়িত্বে থাকবেন কি না, তা স্পষ্ট করে বলুন হ্যান্সি ফ্লিক। এমনটাই দাবি বায়ার্ন মিউনিখের সাম্মানিক সভাপতি ফ্রাঞ্জ বেকেনবাওয়ার।

ইউরো কাপের পরই জার্মানির দায়িত্ব ছাড়তে চলেছেন জোয়াকিম লো। উত্তরসূরি হিসেবে এই পদের জন্য লোর প্রাক্তন সহকারী তথা বায়ার্ন মিউনিখের কোচ ফ্লিকের নাম একপ্রকার চূড়ান্ত হয়ে গিয়েছে বলে জল্পনা। কিন্তু এখনও বিষয়টি নিয়ে মুখ খোলেননি ফ্লিক। এতেই বেদম চটেছেন কাইজার। এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেছেন, ফ্লিককে কোনও একটা দিক বেঁছে নিতে হবে। ও আমাদের ২০২৩ পর্যন্ত চুক্তি করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে। কিন্তু নতুন চুক্তি না হওয়া পর্যন্ত এমন জল্পনা হবেই। তবে সেই জল্পনা ভাঙার দায়িত্ব ফ্লিকেরই। ও এই সংক্রাম্ত প্রশ্ন এড়িয়ে যেতে পারে না।

- Advertisement -

গত মরশুমের মাঝে দায়িত্ব নেওয়ার পর বায়ার্নকে অন্য উচ্চতায় নিয়ে যান ফ্লিক। কোচ হিসেবে এক বছর পূর্ণ করার আগেই মরশুমের সম্ভাব্য সব ট্রফিই জেতেন। পেপ গুয়ার্দিওলার বার্সেলোনার পর দ্বিতীয় দল হিসেবে মরশুমের ৬টি ট্রফিই জিতেছে ফ্লিকের বায়ার্ন। এমনকি এবছর তাদের বুন্দেশলিগা জেতা একপ্রকার নিশ্চিত। তবে সম্প্রতি প্যারিস সাঁ জাঁর কাছে হেরে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ থেকে বিদায় নিয়েছে বায়ার্ন। যা নিয়ে চাপে ফ্লিক। এমনকি তাঁর সঙ্গে ক্লাবের স্পোর্টিং ডিরেক্টর হাসান সালিহামিজিচের সম্পর্কেরও অবনতি হয়েছে। ফলে তিনি জার্মানির জাতীয় দলের দায়িত্ব নিতে পারেন বলে মনে করা হচ্ছে।

সূত্রের খবর, ফ্লিক ক্লাব ছাড়বে ধরে নিয়ে আরবি লিপজিগের কোচ জুলিয়ান নাগেলসম্যানের সঙ্গে কথা বলছে বায়ার্ন কর্তৃপক্ষ। সম্প্রতি জার্মান কিংবদন্তি লোথার ম্যাথিউসও একথা জানিয়েছেন। পাশাপাশি দৌড়ে রয়েছেন জুভেন্তাসের প্রাক্তন কোচ মাসমিলিয়ানো অ্যালেগ্রিও। তবে বায়ার্ন কর্তা কার্ল-হেইঞ্জ রুমেনিগের দাবি, হাসান ও ফ্লিকের সম্পর্ক এখন অনেকটাই স্বাভাবিক। ফ্লিক ক্লাবের দায়িত্বেই থাকবে বলেও মনে করছেন তিনি।