করোনা: স্বাস্থ্যবিধি না মানলে কড়া শাস্তি, নির্দেশ নবান্নের

289

কলকাতা: করোনা পরিস্থিতিতে স্বাস্থ্যবিধি মানা নিয়ে এবার আরও কড়া হল রাজ্য সরকার। এবার থেকে নিয়ম মেনে মাস্ক পরে ও সামাজিক দূরত্ব মেনে চলাফেরা করতে হবে রাজ্যবাসীকে। নিয়ম মানায় কোনও রকম খামতি দেখা দিলেই তা আইনত দণ্ডনীয় বলে গণ্য হবে। এমনকি, ফৌজদারি অপরাধ হিসেবে দেখা হবে। শুক্রবার নবান্নের তরফে এই নির্দেশ জারি করলেন স্বরাষ্ট্র সচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়।

স্বরাষ্ট্র সচিবের জারি করা নির্দেশিকায় বলা হয়েছে, রাস্তায় বেরলে এবার থেকে নিয়ম মেনে পরতে হবে মাস্ক। মানতে হবে সামাজিক দূরত্ববিধিও। কোনও ব্যক্তিকে মাস্ক না পরে রাস্তায় বেরতে দেখলেই পুলিশ আটকাবে তাঁকে। কেন মাস্ক পরছেন না তিনি, সেই সম্পর্কিত প্রশ্নও করা হবে। তারপর তাঁকে মাস্ক পরতে অনুরোধ জানানো হবে। তবে সেই অনুরোধে কাজ না হলে তাঁকে বাড়ি পাঠিয়ে দেওয়া হবে। হবে জরিমানাও। এছাড়াও মাস্ক না পরলে তা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ হিসাবে গণ্য করা হবে। প্রয়োজনে তাঁকে যেতে হতে পারে আদালতেও। সেখানে গিয়ে মাস্ক কেন পরেননি তার ব্যাখ্যা দিতে হতে পারে।

- Advertisement -

এই নির্দেশিকা ইতিমধ্যেই জেলা প্রশাসন, পুরসভা এবং পুলিশের কাছে স্বরাষ্ট্র সচিবের নির্দেশিকা পৌঁছে গিয়েছে। তাই শুক্রবার থেকেই জারি হবে নয়া বিধি। এর আগেও কলকাতা পুলিশ মাস্ক না পরার অপরাধে বহু ‘উদাসীন’ মানুষকে গ্রেপ্তার করেছিল। তবে তাতে কাজ না হওয়ায় জারি করা হল নির্দেশিকা।

আনলক ২-তে ঘর থেকে বেরোতে শুরু করেছেন অনেকে। কিন্তু করোনার জেরে নিয়ম মেনে মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক। পরছেনও অনেকেই। তবে অনেক ক্ষেত্রেই দেখা যাচ্ছে, কারও গলায় ঝুলছে, কারও বা চিবুক পর্যন্ত নামানো মাস্ক। কানেও ঝুলিয়ে রাখছেন কেউ। এইভাবেই সাইকেল, মোটরসাইকেল, গাড়িতে কিংবা হেঁটেই ঘুরছেন রাজ্যবাসী। এই ছবিরই বদল চায় নবান্ন। শ্বাসের অসুবিধা বা গরম লাগায় মাস্ক ঠিকভাবে না পরার অজুহাত দিলে তা মোটেও ধোপে টিকবে না আর।