বাইডেনের ক্যাবিনেটে ‘বাঙালি’ মন্ত্রী

981

নিউজ ডেস্ক: মন্ত্রিসভায় গুরুত্বপূর্ণ পদ পেতে চলেছেন দুই ভারতীয়। বিশিষ্ট দু’জন ‘বাঙালি’ হলেন প্রাক্তন মার্কিন সার্জন জেনারেল বিবেক মূর্তি এবং স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক অরুণ মজুমদার। সূত্রের খবর, বিবেক মূর্তিকে স্বাস্থ্য ও মানব পরিষেবা সচিব এবং অরুণ মজুমদারকে শক্তি সচিব হিসেবে প্রাথমিক ভাবে ভাবা হয়েছে।

অরুণাভ মজুমদার, আইআইটি বম্বের প্রাক্তনীর পরিচিত ‘অরুণ’ মজুমদার হিসেবেই। আইআইটি বম্বে থেকে মেকানিক্যাল ইঞ্জিয়ারিংয়ে ব্যাচেলার্স ডিগ্রি পাওয়ার পর অরুণ চলে যান আমেরিকা। ইউনিভার্সিটি অব ক্যালিফোর্নিয়া, বার্কলেতে গবেষণা করেন। বর্তমানে তিনি স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং এবং মেটিরিয়াল সায়েন্সের অধ্যাপক। বিশ্ববিদ্যালয়ের জে প্রিকোর্ট প্রোভোস্টিয়াল চেয়ার প্রফেসরও তিনি। সঙ্গে প্রিকোর্ট ইনস্টিটিউট অব এনার্জির সহ-অধিকর্তা হিসেবেও কাজ করছেন।

- Advertisement -

২০০৯ সালে সেনেটের অনুমোদন নিয়ে তদানীন্তন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা তাঁকে অ্যাডভান্সড রিসার্চ প্রোজেক্ট এজেন্সি-এনার্জি (এআরপিএ-ই)-র প্রতিষ্ঠাতা অধিকর্তা মনোনীত করেন। স্ট্যানফোর্ডের আগে তিনি অ্যারিজোনা স্টেট ইউনিভার্সিটি এবং ইউনিভার্সিটি অব ক্যালিফর্নিয়ায় শিক্ষকতা করেছেন। আমেরিকার ন্যাশনাল অ্যাকাডেমি অব সায়েন্স-সহ একাধিক প্রতিষ্ঠানের সঙ্গেও তিনি যুক্ত।

উল্লেখ্য, ১৯৯৬ সালে সিপিএমের কেন্দ্রীয় কমিটির আপত্তিতে বঙ্গসন্তান জ্যোতি বসুর আর রেস কোর্স রোডে ওরফে লোক কল্যাণ মার্গে পৌঁছান হয়নি। এরপর ২০১২ সালের জুলাই মাসে প্রণব মুখোপাধ্যায় রাষ্ট্রপতি হওয়ার আগে পর্যন্ত তৎকালীন কেন্দ্রীয় সরকারে তিনি ছিলেন বাঙালি। প্রণব মন্ত্রিত্ব ছাড়ার পর কয়েক মাসের জন্য পূর্ণমন্ত্রী ছিলেন মুকুল রায়। তৃণমূল ইউপিএ ছেড়ে বেরিয়ে আসায় রেল দপ্তর ছাড়তে হয়েছিল মুকুলকে। তারপর থেকে বাঙালি কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভায় এখনও পর্যন্ত কোনও পূর্ণমন্ত্রী পায়নি। অধুনা মোদি সরকারে যে দুই বঙ্গসন্তান মন্ত্রী রয়েছেন, সেই বাবুল সুপ্রিয় এবং দেবশ্রী চৌধুরীরা, তাঁরা পূর্ণমন্ত্রী নন, প্রতিমন্ত্রী মাত্র। ২০১৯ সালে ব্রিটেনের নির্বাচনে লেবার পার্টি হেরে যাওয়ায় মন্ত্রী হতে পারেননি বঙ্গতনয়া ব্যারনেস চক্রবর্তী। বরিস জনসন না জিতলে তাঁর মন্ত্রী হওয়া নিশ্চিত ছিল। আপাতত তিনি ইংল্যান্ড এবং ওয়েলসের শ্যাডো অ্যাটর্নি জেনারেল। তাহলে কি আমেরিকা প্রবাসী বঙ্গসন্তান অরুণ মজুমদারকে দিয়ে কি সেই খরা কাটতে চলেছে?

অন্যদিকে, বহু টানাপড়েনের পর হোয়াইট হাউজের মসনদে জো বাইডেনই বসতে চলেছেন। আর সে খবর একপ্রকার নিশ্চিত হতেই খুশির হাওয়া মার্কিন মুলুকে। আর তাঁর মন্ত্রীসভায় দুজন ভারতীয় বংশোদ্ভূতের স্থান ভারতের সঙ্গে হোয়াইট হাউজের সম্পর্কের মুকুটে যে নয়া পালক সংযোজন করবে তা বলা বাহুল্য।