আমেরিকায় করোনার ওষুধ সংক্রান্ত গবেষণায় বাংলার শ্বেতা

রাজা বন্দোপাধ্যায়, আসানসোল: আমেরিকার কলম্বিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যাপক হেক্টার ফ্লোরেজকে করোনা ভাইরাসের ওষুধ সংক্রান্ত গবেষণায় সহযোগিতা করছেন পশ্চিম বর্ধমান জেলার আসানসোলের জামুড়িয়ার মেয়ে শ্বেতা সিং। তার এই কাজে শুধুমাত্র আসানসোল বা রাজ্যবাসী হিসাবে নয়, গোটা দেশের মানুষ গর্বিত।

জামুড়িয়ার বাসিন্দা ব্যবসায়ী বৈজনাথ সিংয়ের মেয়ে শ্বেতা আসানসোলের লরেটো কনভেন্ট স্কুলে পড়তেন। পরে তিনি উচ্চশিক্ষার জন্য পুনেতে চলে যান। সেখান থেকেই শ্বেতা পিএইচডি করেন। ২০১৮ সালে ইঞ্জিনিয়ার নবনীত সিংয়ের সঙ্গে তাঁর বিয়ে হয়। বিয়ের পরে স্বামীর সঙ্গে আমেরিকার কলম্বিয়াতে চলে যান শ্বেতা। সেখানে তিনি নতুন করে পড়াশোনা শুরু করে। বর্তমানে আমেরিকা বা ভারত নয় গোটা পৃথিবীর মানুষ করোনার জেরে আতঙ্কিত।

- Advertisement -

এই মুহুর্তে বিশ্বের প্রায় ৬৪ হাজার মানুষ কোভিড পজিটিভ। সেই করোনার মতো ভাইরাসের হাত থেকে বাঁচানোর গবেষণায় অংশ নিয়েছেন জামুড়িয়ার শ্বেতা। মার্কিন অধ্যাপক ফ্লোরেজের সঙ্গে জামুড়িয়ার শ্বেতা সিংয়ের করোনা সংক্রান্ত ওষুধের গবেষণার রিপোর্ট সম্প্রতি প্রকাশিত হয়েছে আমেরিকার এক বিখ্যাত মেডিক্যাল জার্নালে। রিপোর্টে কম্পিউটার পরীক্ষার মাধ্যমে দেখানো হয়েছে, বাজারে পাওয়া যায় এমন ১২৯টি ওষুধ ও ৯৯২টি আয়ুবের্দিক সামগ্রীর মধ্যে বিভিন্ন ড্যাসবোর্ড তৈরি করে করোনা মোকাবিলায় নতুন ওষুধের সম্ভাবনা রয়েছে।

শ্বেতা বলেন, তাঁদের তৈরি এই রিপোর্ট মেডিক্যাল সায়েন্সের কাজে লাগলে বিশ্ববাসী উপকৃত হবেন, মুক্তি পাওয়া যাবে করোনা থেকে। বাবা বৈজনাথ সিং ও মা রামবতী সিং মেয়ের এই কাজে গর্বিত। তাঁরা বলেন, খুব ভালো লাগছে।