কাজ হারানোর পাশাপাশি মেয়ের মৃত্যু, যা হল এই শ্রমিকের

139

রায়গঞ্জ: একদিকে কাজ হারানো অন্যদিকে মেয়ের মৃত্যু। দুই যন্ত্রণা সহ্য করতে না পেরে মানসিক ভারসাম্য হারালেন এক ব্যক্তি। জানা গিয়েছে ওই ব্যক্তির নাম বাবুলাল নাগবংশী (৪০)। বাড়ি রায়গঞ্জ থানার কর্ণজোড়া ফাঁড়ির ডাঙ্গাপাড়া গ্ৰামে। তিনি কেরালায় নির্মাণ শ্রমিকের কাজ করতেন। সেখান থেকে কাজ হারানোর পর বাড়িতে চলে আসেন। দশমাস আগে তার বড় মেয়ে পিংকি নাগবংশীর দুরারোগ্য ব্যাধিতে মৃত্যু হয়। তার দিন কয়েকের মধ্যে মানসিক ভারসাম্য হারিয়ে ফেলেন ওই ব্যক্তি। এদিন তাঁর স্ত্রী সুফলা নাগবংশী বলেন, ‘একদিকে কাজ হারানো। অন্যদিকে মেয়ের মৃত্যু। দুই যন্ত্রণা সহ্য করতে না পেরেই আমার স্বামী পাগল হয়ে গিয়েছে। সেই কারণেই হাত পা বেড়ি দিয়ে ও শিকল দিয়ে বেঁধে রাখা হয়েছে।’ রায়গঞ্জ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সহকারি অধ্যক্ষ প্রিয়ঙ্কর রায়ের বক্তব্য, ‘মানসিক রোগের বহির্বিভাগ চালু রয়েছে। ইনডোর পরিষেবা এখনও চালু হয়নি। তাই ওই ব্যক্তিকে ভর্তি রাখা সম্ভব হচ্ছে না। খুব দ্রুত ইনডোর পরিষেবা চালু করার জন্য স্বাস্থ্য ভবনকে বলা হয়েছে।’