ভোটের মুখে বিজেপি তন্তুবায় সংগঠনের সাইকেল মিছিল

132

গঙ্গারামপুর: একুশের ভোট ঘোষনা হতেই শাসক বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলির কর্মসূচি তুঙ্গে উঠছে। সেই মতো গঙ্গারামপুরে সাইকেল মিছিল সহ পথসভা করল বিজেপি তন্তুবায় সংগঠন। আর এই সাইকেল মিছিলে সবুজ সাথী সাইকেল দেখা মিলতে রাজনৈতিক মহলে শোরগোল পড়েছে।

রবিবার বিজেপি তন্তুবায় সংগঠনের পক্ষ থেকে গঙ্গারামপুরে মহারাজপুরে এক সভার আয়োজন করা হয়। পথসভার আগে সংগঠনের পক্ষ থেকে তন্তুবায় সংগঠনের পক্ষ থেকে সাইকেল মিছিল বের করা হয়। সাইকেল মিছিলটি গঙ্গারামপুর শহরের শপিং প্লাজার সামনে থেকে বের হয়। এরপর শহরের বাসস্ট্যান্ড, চৌপথি, কালীতলা হয়ে মহারাজপুরে গিয়ে শেষ হয়। সেখানের দুপুরে আহারে পর শুরু করা হয় পথসভা। আর এই বিজেপির তন্তুবায় সংগঠনের সাইকেল মিছিলে সবুজ সাথীর সাইকেল নিয়ে দলীয় কর্মীরা অংশ নেওয়ায় যথেষ্ট ভাবে রাজনৈতিক মহলে শোরগোল পড়ে। এদিনের সাইকেল মিছিল পথসভায় উপস্থিত ছিলেন বিজেপির তন্তুবায় সংগঠনের জেলা কনভেনার ভবেশ বিশ্বাস সংগঠনের অন্যতম কর্মকর্তা কার্তিক রাজবংশী  বিপ্লব সরকার, মহিতোষ দাস, জয়দেব মণ্ডল সহ প্রমুখরা।

- Advertisement -

এদিনের পথসভা প্রসঙ্গে বিজেপির তন্তুবায় সংগঠনের জেলা কনভেনার ভবেশ বিশ্বাস বলেন, ‘গত ১০ বছরে তৃণমূল সরকার তাঁত শ্রমিকদের জন্য কোনো রকম সুযোগ সুবিধার ব্যবস্থা করেনি। তার ফলে আজকে অনেকে তাঁত শিল্প ছেড়ে দিয়ে কেউ মাছ ধরা। কেউ টোটো, অটো চালানোর পেশা বেছে নিয়েছেন। আবার কেউ বা ভিন রাজ্যে পাড়ি দিয়েছেন। সেজন্য আজকে আমরা সাইকেল মিছিল সহ পথসভার আয়োজন করেছি।’

সুবজসাথী প্রকল্পের সাইকেল নিয়ে বিজেপির তন্তুবায় সংগঠনের কর্মীদের মিছিল  প্রসঙ্গে  জেলা তৃণমূল কংগ্রেস সভাপতি গৌতম দাস বলেন, ‘মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দল তৃণমূল কংগ্রেস বাংলার উন্নয়ন রাজনৈতিক লোক দেখে করেনি। বা রাজনীতি কথা ভেবে করেনি। সার্বিক ভাবে বাংলার উন্নয়ন করতে চেয়েছেন। তার একটা উদাহরণ।’ তিনি বলেন, ‘আজকে বিজেপি হয়ে যারা সাইকেল মিছিল করছেন তাদের কাছে সবুজসাথী সাইকেল। অর্থাৎ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সকলে এগিয়ে নিয়ে যাবার জন্য চেষ্টা করছেন।’ পাশাপাশি গৌতমবাবু বলেন, ‘বিরোধী বলেন বাংলায় গনতন্ত্র নেই। কিন্তু যে গনতন্ত্র আছে আজকে সেটাই বড় উদাহরণ।’