নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন নিয়ে যোগীর মন্তব্যে নীতীশের প্রতিবাদ

432

পটনা: বিহার বিধানসভা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে এনডিএ জোটের সঙ্গে আরজেডি, কংগ্রেস ও বামদের প্রচারযুদ্ধ তুঙ্গে উঠেছে। এবার রাজ্যে এনডিএ জোটের দুই প্রধান শরিক জেডিইউ ও বিজেপির মধ্যেও টানাপোড়েন শুরু হল। বুধবার বিহারে ভোটপ্রচারে এসে উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন নিয়ে যে মন্তব্য করেন, তার জেরে চলতি টানাপোড়েনের সূত্রপাত। প্রকাশ্যে আদিত্যনাথের মন্তব্যের বিরোধিতা করেছেন বিহারের মুখ্যমন্ত্রী তথা জেডিইউ প্রধান নীতীশ কুমার।

কাটিহারে এক জনসভায় বক্তব্য আদিত্যনাথ বলেন, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি অনুপ্রবেশ সমস্যার সমাধান করেছেন। নাগরিকত্ব আইন সংশোধন করে পাকিস্তান, আফগানিস্তান ও বাংলাদেশ থেকে আসা হিন্দুদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা সম্ভব হয়েছে। যে অনুপ্রবেশকারীরা দেশের সুরক্ষা বিঘ্নিত করেন, তাঁদের বার করে দেওয়ার ব্যবস্থা করেছে কেন্দ্রীয় সরকার।

- Advertisement -

আদিত্যনাথের মন্তব্যের কয়েক ঘণ্টার মধ্যে নীতীশ কুমার আরারিয়ায় জেডিইউ প্রার্থীর সমর্থনে এক জনসভায় বলেন, কারা এধরনের মন্তব্য করছেন? কে এই মিথ্যে কথা বলেছেন? এখানে যাঁরা আছেন, তাঁদের সবাই ভারতীয় নাগরিক। তাঁদের তাড়িয়ে দেওয়ার ক্ষমতা ও সাহস কার আছে? নীতীশ বলেন, ভারত বহুত্ববাদী সংস্কৃতির দেশ। সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি ও সৌভ্রাতৃত্বের মাধ্যমে বিহারের উন্নয়ন সম্ভব। বিহার বিধানসভা নির্বাচন চলাকালীন এনডিএ জোটের দুই শরিক দলের মুখ্যমন্ত্রীর পরস্পর বিরোধী মন্তব্য নিয়ে শোরগোল পড়েছে। এর আগে বিহারে এনআরসি কার্যকর করবেন না বলে ঘোষণা করেছিলেন নীতীশ। জেডিইউ সংসদে নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল সমর্থন করলেও পরবর্তীকালে এই ইস্যুতে নীরব ছিলেন বিহারের মুখ্যমন্ত্রী। তবে নির্বাচন চালাকালীন আদিত্যনাথের মন্তব্যের প্রেক্ষিতে নীতীশের এই প্রতিক্রিয়ায় জেডিইউ-বিজেপি টানাপোড়েন নতুন মাত্রা পেল বলে মনে করা হচ্ছে।