বিহারের ব্যক্তির মৃত্যুর ঘটনায় গ্রেপ্তার ২

148

বর্ধমান: নয়ানজুলির পাশ থেকে অজ্ঞাত পরিচয় এক ব্যক্তির মৃতদেহ উদ্ধার হয়। সেই ঘটনার কিনারা করল পূর্ব বর্ধমান জেলা পুলিশ। গত ১ জুন সন্ধ্যায় জেলার আউশগ্রাম থানার বড়া চৌমাথা এলাকা থেকে এক ব্যক্তির দেহ উদ্ধার হয়। জানা গিয়েছে, মৃত ব্যক্তির নাম মহম্মগ খালিদ আনোয়ার ওরফে জুগনু। তাঁর বাড়ি বিহারের সমস্তিপুর জেলার বিথান থানার লাধ কাপাসিয়া এলাকায়। তদন্তে এই ব্যক্তির সম্বন্ধেও চাঞ্চল্যকর তথ্য উঠে আসে। মৃত ব্যক্তির বিরুদ্ধে ভুট্টা ব্যবসায়ীদের ২২ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিয়ে পালানোর অভিযোগ রয়েছে। এছাড়াও বিহার পুলিশের মাধ্যমে জানা গিয়েছে, খালিদ আনোয়ার সম্ভবত গাঁজা ও অস্ত্র কারবার করতেন। ওই ব্যক্তিকে খুনের ঘটনায় জড়িত সন্দেহে বিহারের সমস্তিপুর থেকে গ্রেপ্তার করা হয় পারভেজ আলম ও সাইদুল রহমান নামে দু’জনকে। সোমবার ধৃত দুজনকে বর্ধমান আদালতে পেশ করা হয়।

জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার কল্যাণ সিংহ রায় জানিয়েছেন, গত ১ জুন সন্ধ্যা ৬টা নাগাদ বড়া চৌমাথা এলাকা থেকে ওই ব্যক্তির মৃতদেহ উদ্ধার হয়। ঘটনার তদন্তে নেমে পুলিশ প্রথমে মৃতের ছবি নিয়ে খোঁজখবর চালায়। এক ব্যক্তি পুলিশকে জানায়, সে ওই ব্যক্তিকে স্থানীয় গুসকরা বিট হাউসের কাছে একটি হোটেলে দেখেছেন। ঝাড়খণ্ডের দিকের পেট্রোল পাম্প ও ধাবার সিসিটিভি ফুটেজ খতিয়ে দেখে পুলিশ বিহারের ভাগলপুরের সূত্র খুঁজে পায়। তাতেই সন্দেহজনক গাড়িটির সন্ধান মেলে। ৩১ মে ওই গাড়িটির মালিকের বর্ধমানের দিকে থাকার সম্ভাবনা জোরালো হয় পুলিশের কাছে। তদন্তকরী দল এরপর বিহারের সমস্তিপুর জেলার বিথান থানা এলাকায় অভিযান চালিয়ে গাড়িটিকে আটক করে। একইসঙ্গে ওই এলাকা থেকেই দুই অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করা হয়।

- Advertisement -