ইসলামপুরে সক্রিয় বাইক পাচারচক্র

তপনকুমার বিশ্বাস, ইসলামপুর : ইসলামপুর পুলিশ জেলা এলাকায় দীর্ঘদিন ধরে বাইক পাচারচক্র সক্রিয়। ইসলামপুর থেকে চোরাই করা বাইকের বড় বাজার বিহার ও বাংলাদেশ। সম্প্রতি বাংলাদেশ সীমান্ত সংলগ্ন গোয়ালপোখর থানা এলাকায় অভিয়ান চালিয়ে পুলিশ আটটি ও চাকুলিয়া থানা এলাকায় চারটি চোরাই বাইকও উদ্ধার করে। পুলিশের দাবি, বিহারে পাচারের উদ্দেশ্যেই বাইকগুলিকে জড়ো করা হয়েছিল।

এ বিষয়ে ইসলামপুর পুলিশ জেলার অতিরিক্ত সুপার কার্তিকচন্দ্র মণ্ডল বলেন, চোরাই বাইক পাচারচক্রের বিষয়ে তদন্ত করতে গিয়ে আমরা যতটা জানতে পেরেছি চোরাই বাইকগুলি মূলত বিহার ও আমাদের পুলিশ জেলার আশপাশের জেলাতে পাচার হয়। ইসলামপুরে দীর্ঘদিন থেকে বাইক চোরদের দাপট রয়েছে। সম্প্রতি গোয়ালপোখর ও চাকুলিয়া থানা এলাকা থেকে বেশ কিছু চোরাই বাইক উদ্ধার হয়। বাইক চুরিচক্রের কয়েকজনকে পুলিশ গ্রেপ্তারও করে। ওইসব বাইক বিহার ও ঝাড়খণ্ডের মতো প্রতিবেশী রাজ্যে পাচারের চেষ্টা চলছিল বলে দুষ্কৃতীদের জেরা করে পুলিশ জানতে পারে। তবে বাংলাদেশে বাইক পাচারের ঘটনা তেমন শোনা যায়নি বলে পুলিশ আধিকারিকরা জানিয়েছেন।

- Advertisement -

এ ব্যাপারে নাম প্রকাশ না করার শর্তে এক পুলিশকর্তা বলেন, চোরাই বাইকের বাজার রয়েছে এই জেলার গ্রামাঞ্চলে। সেখানে পুলিশের তল্লাশি ততটা হয় না। ফলে চোরাই বাইকগুলিতে ভুয়ো নম্বর প্লেট লাগিয়ে অনেকে এক গ্রাম থেকে অন্য গ্রামে দুধ, সবজি প্রভতি বাইকে চাপিয়ে নিয়ে যায়। এছাড়া চোরাই বাইকের অন্য ব্যবহারও আছে। বাইকের ইঞ্জিন ভুটভুটি ও নৌকায় ব্যবহৃত হয়। মালদার পাশাপাশি আশপাশের জেলাতেও বাইক থেকে ইঞ্জিন খুলে পাচার করা হয়। এই জেলা থেকে বাইক চুরি করে বিহার এবং ঝাড়খণ্ডে যে পাচার করা হয়ে থাকে, সে ব্যাপারে আগেই জানতে পেরেছিল পুলিশ। সীমান্তে বিএসএফের নজর এড়িয়ে মাদক, জাল নোট, সিরাপ, নেশার ট্যাবলেটের মতো সামগ্রী পাচার সহজ। কাঁটাতারের বেড়া টপকে তা একদিক থেকে অন্যদিকে পাঠানো সহজ।

কিন্তু বাইক পাচারে অনেক ঝুঁকি রয়েছে। তা সত্ত্বেও পাচারকারীরা বাইক চোরাচালান শুরু করায় আমরা উদ্বিগ্ন। একটি সূত্রে জানা গিয়েছে, বাংলাদেশে বাইকের ইঞ্জিনের বড় বাজার রয়েছে। ইঞ্জিনচালিত নৌকায় বাইকের ইঞ্জিন ব্যবহার করা হয়। সীমান্ত এলাকায় দালালের মাধ্যমে বাইকের ইঞ্জিনের দরদাম স্থির করে পাচারের ব্যবস্থা করা হয়। বাইকের ইঞ্জিন কোনওভাবে বাংলাদেশে একবার পাঠানো গেলে তার হদিস আর পাওয়া সম্ভব হবে না। ফলে বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে দেখা হচ্ছে।