মমতাকেই তৃতীয়বার মুখ্যমন্ত্রী চান, বিজেপিকে সবক শেখানোর ডাক গুরুংয়ের

163

নাগরাকাটা: বিজেপিকে সমূলে উপড়ে ফেলে তণমূলকে জেতানোর ডাক দিলেন বিমল গুরুং। শনিবার নাগরাকাটায এসে গোর্খা জনমুক্তি মোর্চা ও তণমূল কংগ্রেসের নেতা-কর্মীদের উদ্দেশ্যে এই আহ্বান জানান। আলিপুরদুয়ারের বিজেপি সাংসদ জন বারলার লক্ষ্মীপাড়া চা বাগানের বাড়ির সামনে তিনি ২ ফেব্রুযারি সভাও করবেন বলে জানিযেছেন। আগামী কিছু দিন ডুযার্স চষে বেরিযে তণমূলের ভোটের পালে হাওয়া তুলতে বিমল যে বদ্ধপরিকর তা এদিন তাঁর ভাষনেই পরিষ্কার হযে গেছে। রবিবার গুরুং যাচ্ছেন কুমারগ্রামে সভা করতে। আলিপুরদুয়ার লোকসভা আসনে গোর্খা ভোট অন্যতম নির্ণাযক ফ্যাক্টর। ২০১৯ এ এই আসনে বিজেপি-র বড় ব্যবধানে জয়ের পেছনে তিনিই যে মূল কান্ডারি ছিলেন এদিন সেকথাও মনে করিযে দেন গুরুং। পাশাপাশি তুলে ধরেন ২০১৬-র বিধানসভা ভোটে মাদারিহাট আসনে বিজেপির মনোজ টিগ্গা কিংবা ২০১১-র বিধানসভায় তণমূল ও কংগ্রেসের জোট প্রার্থী যোশেফ মুন্ডার জয়ের পেছনে তার অবদানও। এদিনের কর্মীসভা কার্যত জনসভার রূপ নেয়। সেখানে  গুরুং বলেন, ‘বিজেপি আমাদের সাথে বিশ্বাসঘাতকতা করেছে। এবার ওঁদের সবক শেখানোর পালা। মমতা বন্দ্যোপাধ্যাযকে ততীয় বারের জন্য মুখ্যমন্ত্রী চাই। এজন্য জান কবুল করতেও কোন দ্বিধা নেই।’ ভগৎপুর চা বাগানের ওই অনুষ্ঠানটির পর বিমল যান নাগরাকাটারই থালঝোড়াতে। সেখানেও একই আহ্বান জানান তিনি। যদিও গুরুংযের বক্তব্যকে গুরুত্ব দিতে চাননি আলিপুরদুযারের  বিজেপি সাংসদ জন বারলা। তিনি বলেন, কে কোথায কি বলেছে সেটা তাঁর ব্যাপার। আমরা আমাদের কাজ চালিযে যাচ্ছি। মানুষ সিদ্ধান্ত নিযে ফেলেছে এবারের নির্বাচনে তাঁরা বিজেপিকে জেতাবে।’