দেশে ফেরান, আর্তি জাপানে জাহাজে আটকে থাকা বিনয়ের

বিশ্বজিৎ সরকার, রায়গঞ্জ : করোনা আতঙ্কে কাঁটা গোটা বিশ্ব। মহামারির আকার নিয়েছে এই মারণ ভাইরাস। এমন পরিস্থিতিতে ৬২ জন করোনা আক্রান্তের মাঝে সুদূর জাপানে জাহাজে আটকে উত্তর দিনাজপুরের চাকুলিযার মজলিশপুরের বাসিন্দা বিনয়কুমার সরকার। ছেলের চিন্তায় রাতের ঘুম উড়েছে বাবা-মায়ের। ছেলেকে দ্রুত দেশে ফিরিয়ে আনার আর্জি জানিয়ে প্রশাসনের দ্বারস্থ হয়েছেন তাঁর পরিবার। তাঁকে দেশে ফিরিয়ে আনতে দ্রুত ব্যবস্থা নেওযার আশ্বাস দিয়েছেন কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী দেবশ্রী চৌধুরি।

উত্তর দিনাজপুরের গোয়ালপুকুর-২ ব্লকের মজলিসপুরের হাতিপা বাসিন্দা বিনয়কুমার সরকার। তিনি একটি জাহাজে কর্মরত। বছর তিনেক আগে গোয়ায় পড়াশোনা শেষ করে আমেরিকায় পাড়ি দিয়েছিলেন। এখন কর্মসূত্রে জাপানে থাকেন। জাহাজে হংকং থেকে টোকিও ফিরছিলেন তিনি। এরমধ্যে করোনা আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়তেই ইয়োকোহামায় জাহাজটি আটকে দেওয়া হয়। বিনয় জানিয়েছেন, জাহাজে ক্রু ও যাত্রী সমেত মোট ১৬০ জন রয়েছেন। তার মধ্যে ৬২ জন ইতিমধ্যে করোনায় আক্রান্ত। তবে এখনও সুস্থ রয়েছেন বিনয়। প্রশাসনের কাছে দ্রুত দেশে ফেরাতে আর্জি জানিয়েছেন তিনি। এনিয়ে ফেসবুকেও একটি পোস্ট করেন তিনি।

- Advertisement -

এমন পরিস্থিতিতে ছেলের চিন্তায় কার্যত ভেঙে পড়েছেন বিনয়ে মা চণ্ডী সরকার। ছেলে কবে বাড়ি ফিরবে, তার অপেক্ষায় বসে রয়েছেন তিনি। প্রশাসনের দ্বারস্থ হয়েছে বিনয়ের পরিবার। এ প্রসঙ্গে কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী দেবশ্রী চৌধুরি জানিয়েছেন, খবরটা জানতে পেরেছি। বিষয়টি প্রধানমন্ত্রীকে জানানোর পাশাপাশি বিদেশমন্ত্রীকেও বলেছি। দ্রুত বিনয়কে উদ্ধার করে ভারতে নিয়ে আসার ব্যবস্থা করা হচ্ছে। এদিকে তৃণমূলের জেলা সভাপতি কানাইয়ালাল আগরওয়াল বলেন, বিষয়টি শুনেছি। পরিবারের পাশে রয়েছি আমরা। সমস্ত বিষয় মুখ্যমন্ত্রীকে জানানো হয়েছে। রাজ্যের বনমন্ত্রী রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, মুখ্যমন্ত্রীকে বিষয়টি জানানো হয়েছে। রাজ্য সরকারের তরফ থেকে যাবতীয় সাহায্যের আশ্বাস দেওয়া হয়েছে ওই পরিবারকে। বিনয়কুমারকে দ্রুত দেশে ফেরাতে উপযুক্ত কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলবেন বলে জানিয়েছেন রাজ্যের শ্রম প্রতিমন্ত্রী গোলাম রব্বানিও।

এদিন বিনয় বলেন, ১৬০ জন ক্রু এই জাহাজে রয়েছি। এই মুহূর্তে ৬২ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত। তাদেরও এই জাহাজে রাখা হয়েছে। আমরা আতঙ্কে রয়েছি। এখনও আক্রান্ত হইনি। তবে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তাই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে আমার নিবেদন, যেকোনও ভাবে আমাদের উদ্ধার করে ভারতে নিয়ে যাওয়ার ব্যবস্থা করুন।