মুখ ঢেকে পাচার করা হচ্ছিল প্রচুর টিয়া, অবশেষে….

179

মালদা: যাত্রীবাহী ট্রেন থেকে উদ্ধার হল ২৫৬টি টিয়াপাখি। যদিও পাখিগুলিকে পাচারের দায়ে কাউকে গ্রেপ্তার করা যায়নি। আরপিএফ সূত্রে জানা গিয়েছে, বৃহস্পতিবার রাতে মালদা টাউন স্টেশনে এসে দাঁড়ায় যোগবানি এক্সপ্রেস। আগাম খবর পেয়ে আরপিএফ জওয়ানরা হানা দেন একটি নির্দিষ্ট সংরক্ষিত কামরায়। ওই কামরার সিটের তল থেকে উদ্ধার করা হয় খাঁচা বন্দি পাখিগুলি। দেখা যায় প্রত্যেকটি পাখির মাথায় কাপড়ের টুপি পরিয়ে দেওয়া হয়েছে,  যাতে পাখিগুলো ভয় পেয়ে না ডেকে ফেলে। তবে কে বা কারা খাঁচাগুলো সেখানে রেখেছিল তা জানা যায়নি। মালদা বন দপ্তরের রেঞ্জার সুজিতকুমার চট্টোপাধ্যায় জানিয়েছেন,  উদ্ধার হওয়া পাখিগুলির মধ্যে রয়েছে প্লাম হেডেড প্যারাকিট, আলেকজান্দ্রিয়া প্যারাকিট,  রেড বেস্টেড প্যারাকিট। এছাড়াও রয়েছে চারটি ইয়োলো ফুটেজ গ্রিন পিজিওন।

প্রসঙ্গত, এই নিয়ে তিনবার মালদা টাউন স্টেশনে যোগবানি এক্সপ্রেস হানা দিয়ে বিপুল পরিমাণে বনের টিয়া উদ্ধার করা হল। এছাড়া কখনও উদ্ধার হয়েছে পাহাড়ি ময়না,  হরিয়ালের মতো অত্যন্ত বিরল প্রজাতির পাখি। বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই দেখা যাচ্ছে টিয়াগুলি মূলত নিয়ে আসা হচ্ছে নেপালের বনাঞ্চল থেকে। পাখিপ্রেমীদের কথায়, এই মুহূর্তে পাখিদের প্রজনন চলছে। টিয়া পাখি মূলত গাছের কোটরে ডিম পাড়ে। ডিম ফুটে বাচ্চা উড়তে না শেখা পর্যন্ত সেই কোটরেই থাকে। সেই সুযোগ নেয় পাচারকারীরা। পাখিরা ছানাদের জন্য খাবার সংগ্রহে বের হতেই পাচারকারীরা পাখির বাসা থেকে সদ্যজাতদের সংগ্রহ করে নিয়ে যায়। সম্প্রতি মালদা টাউন স্টেশনে একাধিকবার পাখি উদ্ধারের ঘটনায় পরিষ্কার যে পাচারকারীরা  পাখি পাচারের জন্য ট্রেনকে বেছে নিয়েছে।

- Advertisement -