রায়গঞ্জে বিজেপি কর্মী খুন, অভিযুক্ত গ্রেপ্তার

622

রায়গঞ্জ: এক বিজেপি কর্মী খুনের ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়ালো রায়গঞ্জ থানার বিন্দোল গ্রাম পঞ্চায়েতে। মঙ্গলবার রাতে বিন্দোল বাজারে মাছ কিনতে আসেন বিজয় বর্মন (৫০) নামে ওই বিজেপি কর্মী। তাঁর বাড়ি বিন্দোল গ্রাম পঞ্চায়েতের বহর গ্রামে। তাঁর মাথায় ভারী বস্তু দিয়ে আঘাত করা হয়। ওই দুষ্কৃতী বিজয়বাবুকে খুন করে পালানোর চেষ্টা করলে স্থানীয় বাসিন্দারা তাঁকে ধরে পুলিশের হাতে তুলে দেন। মঙ্গলবার গভীর রাতে মাছ বাজারের পাশ থেকে পেশায় কৃষক বিজয়বাবুর রক্তাক্ত দেহ উদ্ধার করে পুলিশ। এরপর রায়গঞ্জ মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে পাঠালে চিকিৎসক তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। তবে কী খুন করা হল, তার কারণ এখনও পুলিশের কাছে স্পষ্ট নয়। এবিষয়ে পুলিশ সুপার সুমিতকুমার জানান, অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। তদন্ত চলছে।

মৃতের পরিবারের তরফে রায়গঞ্জ থানায় খুনের অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। বুধবার বিকেল চারটে নাগাদ ময়নাতদন্তের পর দেহ পরিবারের হাতে তুলে দেয় রায়গঞ্জ থানার পুলিশ। স্ত্রী রত্না বর্মন বলেন, ‘অভিযুক্তের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই।’

- Advertisement -

এদিন অভিযুক্তের শাস্তির দাবিতে প্রায় এক ঘণ্টা বিন্দোল রাজ্য সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখান স্থানীয়রা। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যায় রায়গঞ্জ থানার পুলিশ। আন্দোলনকারীদের সঙ্গে কথা বলে পুলিশ অবরোধ তুলে দেয়। বিজয় বর্মনের মৃত্যুতে বুধবার বিন্দোল বাজার এলাকার অধিকাংশ দোকানপাট বন্ধ থাকে।

এদিকে, বিজেপির সক্রিয় কর্মী বলে পরিচিত বিজয় বর্মন। ইদানিং দলের বিভিন্ন কাজে তাঁকে দেখা যেত বলে দাবি করেছেন বিজেপির জেলা সভাপতি বিশ্বজিৎ লাহিড়ি। তিনি বলেন, ‘অভিযুক্ত তৃণমূল করে। তার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করছি। বুধবার দুপুরে থানায় এবিষয়ে লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।’

যদিও তৃণমূলের ব্লক সভাপতি তথা রায়গঞ্জ পঞ্চায়েত সমিতির সহ-সভাপতি মানস ঘোষ বলেন, ‘খুনের ঘটনার সঙ্গে তৃণমূলের কোনও যোগ নেই। অভিযুক্ত ফারাজ মহম্মদ আমাদের দলের কেউ নয়। এই খুনের ঘটনা একান্তই ব্যক্তিগত।’