অবশেষে মৃত্যু হল হিংসায় জখম বিজেপিকর্মী জাকির হোসেনের

209

রামপুরহাট: শেষ পর্যন্ত মৃত্যু হল রাজনৈতিক হিংসায় জখম বিজেপির বুথ সভাপতি শেখ জাকির হোসেনের(৮০)। তাঁর বাড়ি মল্লারপুর থানার কোটগ্রামে। এবার ময়ূরেশ্বর বিধানসভায় বিজেপির হয়ে কাজ করেছিলেন তিনি। ভোটের ফল বেরোতেই জাকির হোসেনের কামড়াঘাটের বাড়িতে ভাংচুর চালানোর অভিযোগ ওঠে তৃণমূলের বিরুদ্ধে। ৮ মে জাকির হোসেনকে মেরে হাত পা ভেঙে দেওয়া হয় বলেও অভিযোগ। আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাঁকে রামপুরহাট মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। উন্নত চিকিৎসার জন্য কলকাতা নিয়ে যাওয়ার পথে রবিবার ভোরবেলা ডানকুনি টোলপ্লাজার কাছে তাঁর মৃত্যু হয়। এই ঘটনায় এলাকায় উত্তেজনা ছড়িয়েছে এলাকায়। অশান্তি এড়াতে গ্রামে বিশাল পুলিশ বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে।

পরিবারের দাবি, ফল বের হওয়ার পর থেকে গ্রামছাড়া জাকির হোসেনের ছেলে নাসিরুদ্দিন। দলের জেলা নেতাদের কাছে মৃত্যুর আশঙ্কা প্রকাশ করেছিলেন জাকির হোসেন। এমনকি মল্লারপুর থানায় অভিযোগ জানাতে গেলে এফআইআর নেওয়া হয়নি বলেও অভিযোগ। সেই আশঙ্কায় বাস্তব হল। বিজেপির প্রাক্তন জেলা সভাপতি অর্জুন সাহার অভিযোগ, পুলিশি নিষ্ক্রিয়তার জন্যই জাকির হোসেনের মৃত্যু হয়েছে। পুলিশ সময়মতো ব্যবস্থা নিলে তাকে মরতে হত না। তৃণমূলের জেলা পরিষদের কো-মেন্টর ধীরেন্দ্র মোহন বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, এই ঘটনার সঙ্গে রাজনীতির কোন যোগ নেই। সব মৃত্যুই বেদনাদায়ক। মৃত্যুর আগে জাকির হোসেন যাদের নাম করেছে তারা দলের কেউ নয়।

- Advertisement -