ভোট শেষে বিজেপি এজেন্টদের মারধরে অভিযুক্ত তৃণমূল

95

জলপাইগুড়ি: নির্বাচনের শেষে উত্তেজনা ছড়াল জলপাইগুড়ি শহরে। শনিবার রাতে শহরের রাস্ট্রীয় বালিকা বিদ্যালয়ের (১৭/১০৬, ১০৭, ১০৮, ১০৯) একটি বুথের সামনে তৃণমূল ও বিজেপির মধ্যে ঝামেলা বাধে। বিজেপির অভিযোগ, ভোট শেষে বিজেপি প্রার্থীর এজেন্টরা বুথ থেকে বার হলে তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীরা তাঁদের আটকে মারধর করে। তাঁদের মধ্যে একজন মহিলা এজেন্টও ছিলেন। খবর পেয়ে দলীয় কর্মীরা গেলে তাঁদেরও মারধর করা হয় এবং একজনের মোবাইল ছিনিয়ে নেওয়া হয় বলে অভিযোগ।

অন্যদিকে, তৃণমূলের পালটা অভিযোগ, পুলিশের যে গাড়িতে করে ইভিএম নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল, সেই গাড়িতেই ইভিএমের সঙ্গে বিজেপির এজেন্টরা ছিলেন। যা একেবারেই নিয়ম বিরুদ্ধ। তা নিয়ে তৃণমূলকর্মীরা প্রতিবাদ করেন। এরপর বিজেপি কর্মীরা তাঁদের ওপর চড়াও হন বলে অভিযোগ। উত্তেজনার খবর পেয়ে পুলিশ এবং কেন্দ্রীয় বাহিনী ঘটনাস্থলে আসে। সেখান থেকে দু-পক্ষকেই সরিয়ে দেওয়া হয়। পুলিশ ও কেন্দ্রীয় বাহিনীর বিরুদ্ধে লাঠিচার্জের অভিযোগ তুলেছে বিজেপি ও তৃণমূল দু’পক্ষই। দু’দলের তরফেই পরস্পরের বিরুদ্ধে রাতেই কোতয়ালি থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়। কমিশনেও অভিযোগ করা হয়েছে। এদিকে, এই ঘটনা নিয়ে রাতে কোতয়ালি থানায় তৃণমূলের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ দেখায় বিজেপি।

- Advertisement -

এই বিষয়ে জেলাশাসক তথা জেলা নির্বাচন আধিকারিক মৌমিতা গোদারা বসু জানান, কেন্দ্রীয় বাহিনীর সঙ্গে ইভিএম গেলেও কোনও গাড়িতে কোনও দলের বুথ এজেন্টকে নিয়ে যাওয়া হয়নি। এটা যাঁরা বলছেন তাঁরা ভিত্তিহীন অভিযোগ করছেন। পুলিশ কোনও লাঠিচার্জ করেনি।