প্রধানকে ঘিরে বিক্ষোভ বিজেপির, উত্তেজনা গ্রাম পঞ্চায়েত দপ্তরে

419

মেখলিগঞ্জ, ২১ সেপ্টেম্বরঃ সরকারি কোনও কাজ পেতে হলে বিনিময়ে কাটমানি চাওয়ার অভিযোগ। সরকারি প্রকল্পের বিভিন্ন কাজে ব্যপক দুর্নীতি এবং রাজনীতি করার অভিযোগ এনে সোমবার মেখলিগঞ্জ ব্লকের ভোটবাড়ি গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধানকে ঘিরে বিক্ষোভ দেখালেন বিজেপির কর্মী-সমর্থকরা। এদিন বিজেপির কর্মীদের তরফে সংশ্লিষ্ট অভিযোগ এনে এলাকায় মিছিল করা হয়। পাশপাশি, বিক্ষোভও দেখানো হয়েছে। তবে, বিক্ষোভ করতে গিয়ে বিজেপির কর্মীরা গ্রাম পঞ্চায়েত দপ্তরের দরজা-জানালায় লাঠি দিয়ে আঘাত করে বলে গ্রাম পঞ্চায়েত কর্তৃপক্ষ অভিযোগ করেছে। যদিও, অভিযোগ অস্বীকার করেছেন বিজেপি নেতারা।

এদিন ঘটনাকে কেন্দ্র করে ব্যাপক উত্তেজনা ছড়ায়। এরপরই ঘটনাস্থলে মেখলিগঞ্জ থানার পুলিশ কর্মীরা এসে পরিস্থিতি সামাল দেন। বিজেপির মেখলিগঞ্জ দক্ষিণ মন্ডল কমিটির সভাপতি দধিরাম রায়, সাধারণ সম্পাদক শ্যামল চন্দ্র বর্মন প্রমুখ বলেন, এই গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধানের মদতে বিভিন্ন দুর্নীতিমূলক কাজ করার অভিযোগ উঠে এসেছে। যেকোনও পরিষেবা নিতে গেলল, সাধারণ মানুষের কাছে কাটমানি চাওয়া হচ্ছে। অনেকে বারবার একই অভিযোগ করে আসছেন।এই সকল অভিযোগের প্রতিবাদে তাঁরা এদিন আন্দোলনে নামতে বাধ্য হয়েছেন।

- Advertisement -

অভিযোগ, বিভিন্ন সরকারি কাজের সুবিধা পাইয়ে দিতেও দলবাজি করা হচ্ছে। অথচ এলাকার উন্নয়নমূলক কাজে নজর দেওয়া হচ্ছে না। বাংলাদেশ সীমান্তবর্তী মেখলিগঞ্জ ব্লকের এই এলাকাতেও প্রচুর পরিযায়ী শ্রমিক রয়েছেন। কাজ হারিয়ে অর্থাভাবে যাদের অনেকেরই আজ শোচনীয় অবস্থা।তাঁদের জন্য কোনও ধরণের ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে না। স্থায়ী কাজের দাবির কথা জানান হয়েছে। এছাড়াও এই গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকায় একাধিক রাস্তার বেহাল অবস্থা এলাকার মানুষের যাতায়াতের ক্ষেত্রে ভীষন সমস্যায় পড়েছেন। গ্রাম পঞ্চায়েত কর্তৃপক্ষ এইসব সমস্যা সমাধানে উদাসীন বলে অভিযোগ করেছেন। সকল অভিযোগ এনে বিজেপি নেতারা দপ্তরের বাইরে স্লোগান দিয়ে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন। ঘণ্টা তিনেক চলে তাঁদের বিক্ষোভ আন্দোলন। পরিস্থিতি সামাল দিতে এলাকায় পুলিশের প্রহরা বসানো হয়েছিল।এদিন মোট ২১ দফা দাবির ভিত্তিতে বিজেপির তরফে প্রধানকে ডেপুটেশন দিয়েছে। ডেপুটেশনের দাবি দাওয়া নিয়েও আলোচনা করতে গিয়ে উত্তেজনা তৈরি হয়েছিল।

ভোটবাড়ি গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান মৃত্যুঞ্জয় সিংহ সরকার বলেন, তাঁদের বিরুদ্ধে যেসব অভিযোগ আনা হচ্ছে সেটা ঠিক নয়। তিনি সম্পূর্ণ সরকারি নিয়ম মেনেই কাজ করছেন। এদিন তিনি যখন দপ্তরের ভেতরে ছিলেন, সেই সময় বাইরে লাঠি দিয়ে দপ্তরের দরজা জানালায় পেটানোর শব্দ শুনছেন তিনি। তবে ,সঠিক কি হয়েছে তা তিনি বলতে পারেননি।