সাংসদকে নিয়ে বুথে বুথে ভোট প্রচারে বিজেপি প্রার্থী, কটাক্ষ তৃণমূলের

138

ফালাকাটা: প্রার্থী নিয়ে এখন আর কোনও সমস্যা নেই। তাই ফালাকাটায় জোরকদমে ভোটের প্রচার শুরু করেছে বিজেপি। কিন্তু দলের প্রার্থী দীপক বর্মনের সঙ্গে সফরসঙ্গী হিসেবে থাকছেন সাংসদ জন বারলাও। তাঁরা দু’জনই দলের কার্যকর্তাদের নিয়ে বুথে বুথে প্রচার সারছেন। বুধবার সাংসদকে নিয়ে ব্লকের একাধিক বুথে গিয়ে জনসম্পর্ক অভিযান করেন বিজেপির প্রার্থী। এদিকে, সাংসদকে প্রার্থীর সফরসঙ্গী করায় বিজেপিকে কটাক্ষ করেছে তৃণমূল। সাংসদ কোনও কাজ করেননি এবং বিজেপির প্রার্থীর একা প্রচার চালানোর ক্ষমতা নেই বলে জানিয়েছেন তৃণমূলের নেতারা।

ফালাকাটায় প্রার্থী ঘোষণা পরে হওয়ায় প্রচারে কিছুটা পিছিয়ে ছিল বিজেপি। আবার প্রার্থীকে নিয়েও নেতাদের একাংশের মধ্যে মান অভিমান তৈরি হয়। তবে দলের জেলা স্তরের নেতারা দফায় দফায় আলোচনা করে বিক্ষুব্ধদের অভিমান অনেকটাই মিটিয়েছেন। তাই এবার প্রচারে জোর দিচ্ছে পদ্মশিবির। এদিন ফালাকাটা বিধানসভা কেন্দ্রের শিশাগোড়, বালাসুন্দর, গুদামটারি মোড়, মেজবিল, পশ্চিম কাঁঠালবাড়ি, পুটিমারি মোড় সহ একাধিক জায়গায় পায়ে হেঁটে জনসম্পর্ক অভিযান চালায় বিজেপি। দলের প্রতিটি কর্মসূচিতে উপস্থিত ছিলেন প্রার্থী ও সাংসদ। কোথাও বাজারের ব্যবসায়ীদের কাছেও ভোট ভিক্ষার আবেদন জানাতে দেখা যায় প্রার্থীকে। সব জায়গায় ব্যাপক সাড়া মিলছে বলে জানিয়েছেন বিজেপির নেতারা।

- Advertisement -

সাংসদ জন বারলা বলেন, ‘এবার এই বাংলায় ডবল ইঞ্জিন সরকার প্রয়োজন। আর ফালাকাটায় গত লোকসভা নির্বাচনে মানুষ বিজেপিকে উজাড় করে ভোট দিয়েছেন। তাই দলের প্রার্থীর সমর্থনে আমিও প্রচারে এসেছি। এবারও মানুষের ভালো সাড়া পাওয়া যাচ্ছে।’

প্রার্থী দীপক বর্মন বলেন, ‘রোজ বুথে বুথে প্রচারে যাচ্ছি। হাট-বাজারেও প্রচার চলছে। সব জায়গায় ভালো সাড়া মিলছে।’ এবার এই কেন্দ্রে ৬০ হাজার ভোটের ব্যবধানে বিজেপি জিতবে বলে তিনি আশাবাদী। তবে সাংসদকে প্রচারের সঙ্গী করায় বিজেপির বিরুদ্ধে পালটা প্রচার চালাচ্ছে তৃণমূল কংগ্রেস। দলের ফালাকাটা ব্লক সভাপতি তথা প্রার্থী সুভাষ রায় বলেন, ‘বিজেপির সাংসদ দু’বছরে ফালাকাটার জন্য কোনও কাজ করতে পারেননি। সাংসদ হিসেবে জন বারলা ব্যর্থ। আর তাঁকে নিয়েই এখন প্রচার করছে বিজেপি। কারণ ওদের প্রার্থী একা ভোটের প্রচার করতে পারছেন না। তবে বিজেপিকে ফালাকাটার মানুষ এবার প্রত্যাখ্যান করবেন। কারণ রাজ্য সরকার এখানে ধারাবাহিক উন্নয়ন করেছে। তাই সাধারণ মানুষ তৃণমূলের পক্ষেই রায় দেবেন।’

তৃণমূলের জবাবে পালটা বিজেপি সাংসদ জন বারলা বলেন, ‘এই রাজ্য প্রশাসনই তো আমাকে কোনও কাজ করতে দেয়নি। সাধারণ মানুষ সবই বোঝেন। তাই আমরা রাজ্যের ক্ষমতা আসলে যা যা প্রতিশ্রুতি দিয়েছি, সব পূরণ করব।’