দোলে নেচে-গেয়ে ভোট প্রচার সারলেন বৈষ্ণবনগরের বিজেপি প্রার্থী

64

বৈষ্ণবনগর: দোল উৎসবে গান গেয়ে, নেচে, সেলফি তুলে ভোট প্রচার সারলেন বৈষ্ণবনগরের বিজেপি প্রার্থী স্বাধীন কুমার সরকার। অনুগামীদের সঙ্গে নিয়ে রং খেলায় মেতে ওঠেন তিনি। দোলের দিন বিকেলে বাড়ি থেকে বের হতেই বিজেপির কর্মী-সমর্থকরা ঘিরে ধরেন স্বাধীনবাবুকে। বাড়ির পাশেই বীরনগর এলাকায় শুরু হয়ে যায় রং খেলা। একে অপরকে রং মাখিয়ে দেন প্রার্থী ও অনুরাগীরা। রং খেলার সঙ্গে অনুরাগীদের নিয়ে নাচে, গানে মেতে ওঠেন স্বাধীনবাবু। তোলেন সেলফিও। বড়দের কাছে আশীর্বাদ নিতেও দেখা যায় তাঁকে।

রবিবার সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত টানা কর্মসূচি সারেন বিদায়ী বিধায়ক তথা বিজেপি প্রার্থী স্বাধীন কুমার সরকার। দুপুরে বৈষ্ণবনগর বিধানসভা এলাকার বিজেপির প্রধান প্রধান দলীয় কার্যালয় ১৭ মাইলে জাতীয় সড়কের পাশে তিনটি মণ্ডল কমিটির কর্মকর্তাদের নিয়ে একটি সভাও করেন। সভায় উপস্থিত ছিলেন বিজেপির জেলা সভাপতি গোবিন্দ চন্দ্র মণ্ডল, বৈষ্ণবনগর বিধানসভার নবনিযুক্ত পর্যবেক্ষক অম্লান ভাদুড়ি, জেলা সাধারণ সম্পাদক তারক কুমার ঘোষ সহ অন্যান্য নেতৃত্ব।

- Advertisement -

বিজেপির বৈষ্ণবনগরের পর্যবেক্ষক অম্লান ভাদুড়ি বলেন, ‘এবারের নির্বাচন মূলত জনতা ভার্সেস মমতা। তাই জনতা বুঝে গিয়েছেন, ১০ বছরে মমতা এই পশ্চিমবঙ্গে কি করেছেন। তাই মমতাকে সরিয়ে জনতা বিজেপিকে বাংলার মসনদে বসানোর জন্য তৈরি হয়েছেন। তাই সোনার বাংলা গড়তে এবং বিজেপির হাত শক্ত করতে বৈষ্ণবনগরে ও বিজেপির পক্ষে জনতা ভোট দেবেন। কারণ বিজেপির যে প্রার্থী এখানে রয়েছেন স্বাধীন কুমার সরকার। তিনি অত্যন্ত স্বচ্ছ ভাবমূর্তি সম্পন্ন মানুষ। তিনি কখনও থানায় দালালি করতে জানেন না। এই কেন্দ্রে যাঁকে তৃণমূলের প্রার্থী করা হয়েছে। তিনি থানার দালালি করা থেকে শুরু করে বিভিন্ন অভিযোগে অভিযুক্ত। তাছাড়া বৈষ্ণবনগরে তৃণমূল বিভিন্ন গোষ্ঠীতে বিভক্ত। তৃণমূলের মধ্যে লাগাতার ঝামেলা হতে থাকে। গোষ্ঠীদ্বন্দ্বে জর্জরিত তৃণমূল কখনই এই কেন্দ্রে পাশ করতে পারবে না। স্বাভাবিকভাবেই এই কেন্দ্রে তৃণমূলের প্রার্থী স্বাধীন কুমার সরকার পাশ করবেন আশা প্রকাশ করেন।

বিজেপি প্রার্থী স্বাধীন কুমার সরকার বলেন, ‘রবিবার থেকেই দেবদোল শুরু হয়েছে। আমরা সকাল থেকেই বিভিন্ন গ্রামে প্রচার চালিয়েছি। দুপুর বারোটা নাগাদ বিজেপির প্রধান কার্যালয়ে এই সভায় আমরা সকলে উপস্থিত হয়েছি। গতকাল প্রথম দফার ভোটে আমরা লক্ষ্য করেছি মানুষ স্বতঃস্ফূর্তভাবে বিজেপিকে ভোট দিয়েছে। ৩০টি আসনের মধ্যে দু-একটি আসন বাদে সব আসনেই বিজেপি প্রার্থীরা জয়লাভ করবে। বাংলায় ‘নির্মমতার’ সরকারকে পরাজিত করে সোনার বাংলা গড়ার লক্ষ্যে বিজেপি ক্ষমতায় বসবে। আমরা ভোট প্রচারে গিয়ে দেখতে পেয়েছি। বিজেপিকে ভোট দেবার জন্য মানুষ মুখিয়ে রয়েছেন। পাশাপাশি আজকে দেবদোলের দিন। রঙের উৎসবে মেতে উঠেছে সকলেই। আমরাও এই উৎসবে শামিল হয়েছি।’ বৈষ্ণবনগরবাসীকে দোলযাত্রার শুভেচ্ছা জানিয়ে আইনশৃঙ্খলা মেনে সকলকে হোলি খেলার বার্তা দেন তিনি।