জেলা সভাপতির বিরুদ্ধে নালিশ না শোনায় মন্তাদরিতে বিক্ষোভের মুখে দিলীপ ঘোষ

645

গজলডোবা: এবার প্রকাশ্যে বিজেপির গোষ্ঠী কোন্দল। জেলা সভাপতির বিরুদ্ধে নালিশ জানাতে রাজ্য বিজেপির সভাপতি দিলীপ ঘোষের শরণাপন্ন জলপাইগুড়ি জেলার নিচুতলার নেতা-কর্মীরা। তবে জেলা সভাপতির বিরুদ্ধে অভিযোগ না শুনেই রাজ্য সভাপতি ঘটনাস্থল ছেড়ে দেওয়ার ঘটনায় ক্ষোভে ফেটে পড়লেন তাঁরা। জেলা সভাপতির বিরুদ্ধে শ্লোগান তুলে রাজ্য সভাপতিকে ঘিরে মিনিট’কয় বিক্ষোভ দেখালেন।

অভিযোগ, জলপাইগুড়ি জেলার সভাপতি বাপী গোস্বামী রাজ্য কমিটির কোনও নিয়ম মানছেন না। রাজ্য কমিটির সিদ্ধান্তকে অগ্রাহ্য করে নিজের মতো করে কমিটি গঠন করে দলে নবাগতদের প্রাধান্য দিচ্ছেন। ফলে ক্রমশ কোনঠাসা হয়ে পড়ছেন আদি নেতা-কর্মীরা। ঘটনায় বিজেপির গোষ্ঠী কোন্দল ক্রমেই মাথাচারা দিয়ে উঠছিল বহুদিন ধরেই। বুধবার তার বহিঃপ্রকাশ ঘটল।

- Advertisement -

এদিন, মন্তাদরিতে মৃত বিজেপি কর্মী উলেন রায়ের বাড়িতে যান বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। সেখানে পৌঁছে মৃত কর্মীর পরিবারের সঙ্গে কথা বলেন তিনি। শোনেন অভাব অভিযোগ। সেসময় জেলা বিজেপির নিচু তলার কর্মীরা একজোট হয়ে জেলা সভাপতির নামে নালিশ জানাতে রাজ্য সভাপতির সঙ্গে কথা বলতে সচেষ্ট হন। যদিও নিচুতলার কর্মীদের অভিযোগে কান না দিয়ে সেখান থেকে রওনা দেন দিলীপ ঘোষ। ঘটনায় ক্ষুব্ধ নেতা-কর্মীরা বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন।

স্থানীয় বিজেপি কর্মী বাদল রায় জানান, জেলা সভাপতি দলকে বিশৃঙ্খল পরিস্থিতির মধ্যে নিয়ে যাচ্ছেন। অন্যদিকে, রাজ্য কমিটির নির্দেশকে অগ্রাহ্য করে কমিটি গঠন করছেন। যাদের পদে বসাচ্ছেন তাদের সিংভাগই কিছুদিন আগেও বিজেপির বিরুদ্ধে ছিলেন। অপর এক কর্মী পদ্মেশ্বর রায় জানান, বুথে বুথে যাদের সভাপতি করা হচ্ছে তারা অন্যান্য রাজনৈতিক দল থেকে সদ্য যোগ দিয়েছেন। তারা দল সম্পর্কে সেভাবে কিছুই জানেন না। তবে দিলীপ ঘোষের বিরুদ্ধে কোনও অভিযোগ নেই বলেই জানিয়েছেন বিক্ষুব্ধ নেতা-কর্মীরা।