রাস্তা আটকে পথসভা দিলীপের, সরব তৃণমূল

88

রাঙ্গালিবাজনা: আলিপুরদুয়ার জেলার মাদারিহাট বিধানসভা কেন্দ্রের বীরপাড়ায় বুধবার বিজেপি প্রার্থী মনোজ টিগ্গার সমর্থনে রোড শো শেষে বীরপাড়া চৌপথিতে রাস্তার ওপরই গাড়ি দাঁড় করিয়ে বেশ কিছুক্ষণ সময় বক্তব্য রাখেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। ফলে ব্যাপক যানজট তৈরি হয় বীরপাড়ার লাইফ লাইন হিসেবে পরিচিত মহাত্মা গান্ধী রোডে। এদিন যানজটে অন্যান্য যানবাহনের সাথে আটকে পড়েন মোটরবাইক আরোহীরাও। স্বাভাবিকভাবেই দিলীপ ঘোষ এবং বিজেপির বিরুদ্ধে তোপ দেগেছেন তৃণমূলের নেতা-কর্মীরা।

তৃণমূলের নেতা ও কর্মীদের বক্তব্য, সাধারণত পথসভা করা হয় রাস্তার পাশে। রাস্তার ওপর নয়। তাই এদিন রাস্তার ওপর গাড়ি দাঁড় করিয়ে দিলীপবাবুর বক্তব্যের পরই তাঁর সমালোচনায় মুখর হয়ে ওঠেন তৃণমূলের নেতা, কর্মী ও সমর্থকরা। প্রসঙ্গত, এদিন দিলীপবাবু বীরপাড়ায় পৌঁছানোর আগে থেকেই মহাত্মা গান্ধী রোডে যান চলাচল নিয়ন্ত্রণ করে পুলিশ। এমনকি টোটো, রিক্সাগুলিকেও বাসস্ট্যান্ড ও রবীন্দ্রনগরের রাস্তা দিয়ে ঘুরিয়ে দেওয়া হয়। আবার বীরপাড়া চৌপথিতে তাঁর বক্তব্যের সময় ১৫-২০ মিনিট বন্ধ হয়ে থাকে যান চলাচল। দিলীপের রোড শোয়ে প্রচুর টোটোরিক্সাও ছিল। রাস্তার ওপরই টোটোরিক্সাগুলি দাঁড়িয়ে পড়ায় জটিল পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়।

- Advertisement -

তৃণমূলের জেলা সহ-সভাপতি পঙ্কজ দাস বলেন, ‘দিলীপবাবু যা করেছেন তা অত্যন্ত গর্হিত কাজ। তিনি পথসভা করতেই পারেন। কিন্তু রাস্তা আটকে পথসভা করে এভাবে সাধারণ মানুষকে হেনস্থা করার অধিকার তাঁর নেই।’  যদিও বিজেপির দাবি এদিনের পথসভার জেরে সাধারণ মানুষের তেমন কোনও সমস্যা হয়নি। এবিষয়ে মাদারিহাটের বিদায়ি বিধায়ক তথা বিজেপি প্রার্থী মনোজ টিগ্গা বলেন, ‘আমরা  পথসভা করারও অনুমতি নিয়েছিলাম। উৎসাহিত লোকজনের ভিড় হয়েছিল। এছাড়া রাস্তা ছোটো হওয়াতেই একটু যানজট তৈরি হয়।’

প্রসঙ্গত, বীরপাড়ার বাসিন্দা ও ব্যবসায়ীদের মন জয় করতে এখন যুযুধান সব দলই। ঘনঘন বীরপাড়ায় প্রচারে যাচ্ছেন বিজেপির মনোজ টিগ্গা, তৃণমূলের রাজেশ লাকড়া ও সংযুক্ত মোর্চার সুভাষ লোহার। এরই মাঝে প্রচারে ঝড় তুলে দিয়ে গেলেন দিলীপ ঘোষ।