বিজেপির চাকরির প্রতিশ্রুতি কার্ড এখন বস্তাবন্দি

202

সানি সরকার, শিলিগুড়ি : শুরুতেই থমকে গেল প্রতিশ্রুতি। আর নয় অন্যায় আওয়াজ তুলে রাজ্য দখলে ঘরে ঘরে চাকরির প্রতিশ্রুতি দিতে শুরু করেছিল বিজেপি। উসকে দিয়েছিল বেকারত্বের জ্বালা। কিন্তু এখন প্রতিশ্রুতি কার্ড দলীয় কার্যালয়ে বস্তাবন্দি, যা নিয়ে দলের অন্দরেই প্রশ্ন উঠেছে। চাকরির প্রতিশ্রুতি ভবিষ্যতে বুমেরাং হতে পারে, আশঙ্কায় দলের কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের নির্দেশে কার্ড বণ্টন বন্ধ বলে জানা গিয়েছে। তবে সরাসরি তা স্বীকার করতে নারাজ যুব মোর্চা নেতৃত্ব। সংগঠনের শিলিগুড়ি সাংগঠনিক জেলা সভাপতি কাঞ্চন দেবনাথ বলেন, আমাদের জেলায় কার্ড বণ্টন কর্মসূচি শুরু হওয়ার মুখেই রাজনৈতিক প্রতিহিংসায় আমাদের জেলে যেতে হয়। জামিনে মুক্তি পাওয়ার পর জানতে পারি, কর্মসূচিটি বন্ধ রাখা হয়েছে। তবে কী কারণ, তা জানা নেই। যুব মোর্চার আলিপুরদুয়ারের জেলা সভাপতি বিপ্লব দাস বলেন, কার্ড বণ্টনের ক্ষেত্রে এখনও পর্যন্ত রাজ্য বা কেন্দ্রের তরফে আমরা কোনও দিন জানতে পারিনি। তবে কার্ড বণ্টন বন্ধ রাখার নির্দেশ পেয়েছি। কী কারণ, তা জানা নেই। দক্ষিণ দিনাজপুরের জেলা সভাপতি অভিষেক সেনগুপ্তের বক্তব্য, কর্মসংস্থানের পরিবেশ সৃষ্টির জন্যই কার্ড বণ্টনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল। কিন্তু এখন কৃষকদের কাছে যাওয়াকেই বেশি গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে।
আর নয় অন্যায়, রাজ্যের বিভিন্ন অঘটন তুলে ধরে আওয়াজ তুলেছিল বিজেপি যুব মোর্চা। প্রতিবাদের পাশাপাশি বেকারত্বের প্রসঙ্গ তুলে ধরে ক্ষমতায় এসে চাকরি দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিচ্ছিল যুব মোর্চা। মূলত যুবদের ভোট টানতেই এই পরিকল্পনা নিয়েছিল গেরুয়া শিবির। কার্যত স্বপ্নের ফেরিওয়ালা হয়ে উঠেছিলেন যুব মোর্চার নেতা-কর্মীরা। বিজেপি নেতৃত্ব যাবতীয় তথ্য সংগ্রহ করায়, আশাবাদী হয়ে উঠেছিলেন বাংলার বাকি অংশের সঙ্গে উত্তরবঙ্গের যুবকরাও। কিন্তু হঠাৎই বাড়ি বাড়ি যাওয়া বন্ধ হয়ে যায় যুব মোর্চার নেতা-কর্মীদের। যথারীতি তথ্য সংগ্রহ এবং প্রতিশ্রুতি কার্ড বণ্টনে ইতি টানে যুব মোর্চা। কিন্তু কেন? দলের একটি সূত্রে জানা গিয়েছে, চাকরির প্রতিশ্রুতি বিলি ভালোভাবে নেননি কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব। যে কার্ড বণ্টন হচ্ছে, ভবিষ্যতে তা দেখিয়ে অনেকেই চাকরির দাবি করতে পারেন, এমনকি আন্দোলন সংগঠিত হতে পারে- এই আশঙ্কাতেই কেন্দ্রীয় নেতারা প্রতিশ্রুতিতে আপত্তি জানান। ফলে উত্তরবঙ্গের প্রত্যেকটি জেলা কার্যালয়ে প্রায় দুমাস ধরে পড়ে রয়েছে হাজার হাজার চাকরির প্রতিশ্রুতি কার্ড, যাতে ধুলোও জমেছে। যদিও কার্ড বণ্টনে আপত্তি জানালেও ভোটের মুখে চাকরির প্রতিশ্রুতি দেওয়া থেকে সরছে না বিজেপি। পাড়ায় পাড়ায় পথসভা করে কর্মসংস্থানের ক্ষেত্রে রাজ্যের বর্তমান পরিস্থিতি তুলে ধরার পাশাপাশি রাজ্যের ক্ষমতায় এলে বিজেপি যুবদের জন্য কী করবে, সেই কথা তুলে ধরার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের তরফে। যদিও এখন পর্যন্ত সেইভাবে ভোট প্রচারে নামতে দেখা যায়নি যুব মোর্চাকে।