আইটি সেলের অতি সক্রিয়তায় অস্বস্তিতে বিজেপি

সুভাষ বর্মন, ফালাকাটা : সোশ্যাল মিডিয়ায় যুবনেতাদের অতি সক্রিয়তায় ফালাকাটায় বিজেপির অস্বস্তি বাড়ছে। সম্প্রতি দলের আইটি সেলের বেশ কয়েকজন নেতা সোশ্যাল মিডিয়ায় ছবি বা ভিডিও লাইক, পোস্ট বা শেয়ার করার অভিযোগে গ্রেপ্তার হন। সূত্রের খবর, যুবনেতাদের একাংশের এই অতি সক্রিয়তা নিয়ে বিজেপির অন্দরে প্রশ্ন উঠেছে। এক্ষেত্রে তৃণমূল কংগ্রেস প্রচারের বিষয়ে বাড়তি সুযোগ পেতে পারে বলে গেরুয়া শিবিরে চর্চা হচ্ছে। অন্যদিকে, বিজেপি উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবেই আইটি সেলের মাধ্যমে এসব করাচ্ছে বলে তৃণমূলের অভিযোগ। বিজেপির দিকে বাড়তি নজরদারি শুরু হয়েছে বলে তৃণমূল নেতারা জানিয়েছেন। বিজেপির পালটা দাবি, সোশ্যাল মিডিয়ায় আরও বড় ঘটনার ক্ষেত্রে তৃণমূলের নেতা বা সমর্থকদের পুলিশ গ্রেপ্তার করে না। কিন্তু বিজেপির কেউ সামান্য কিছু করলেই তাঁদের মিথ্যা মামলায় ফাঁসানো হয়।

বিজেপির আলিপুরদুয়ারের জেলা সভাপতি গঙ্গাপ্রসাদ শর্মা বলেন, দলের তরফে যুবদের বারবার সতর্ক করা হয়েছে। তা সত্ত্বেও কেউ কেউ মাঝেমধ্যে ছোটখাটো ভুল করে চলেছেন। তৃণমূল কংগ্রেসের সক্রিয়তা নিয়ে প্রশ্ন তুলে গঙ্গাপ্রসাদবাবু বলেন, আমাদের চেয়ে তৃণমূলের লোকজন সোশ্যাল মিডিয়ায় বড় বড় ঘটনা নেতিবাচকভাবে প্রচার করে। তখন পুলিশ নিষ্ক্রিয় থাকে। ওদের বিরুদ্ধে সাইবার ক্রাইমে অভিযোগ জানালেও কোনও পদক্ষেপ করা হয় না। দলের জেলা সাধারণ সম্পাদক দীপক বর্মন বলেন, এজন্য আমাদের কোনও অস্বস্তি বাড়ছে না। সংগঠনের ক্ষতিরও প্রশ্ন নেই। কারণ, পুলিশ ও প্রশাসন যে কতটা দলদাসে পরিণত হয়েছে তা সাধারণ মানুষ ভালোমতোই জানে।

- Advertisement -

ফালাকাটায় কয়েক মাসের ব্যবধানে সোশ্যাল মিডিয়ার পোস্ট সংক্রান্ত অভিযোগে বিজেপির চারজনকে পুলিশ গ্রেপ্তার করে। তাঁদের কেউ আইটি সেলের সক্রিয় সদস্য, কেউ যুব নেতা বা দলের সমর্থক। বারবার একইরকমের ঘটনায় বিজেপির চাপ বাড়ছে। সূত্রের খবর, গত লোকসভা নির্বাচনের নিরিখে আলিপুরদুয়ার জেলার মধ্যে ফালাকাটায় বিজেপি ভালো স্থানে রয়েছে। কিছুদিন আগে উপনির্বাচনের সম্ভাবনা থাকায় গেরুয়া শিবির এই বিধানসভা কেন্দ্রে ভালোভাবেই ঘর গুছিয়ে নেয়। দলের পাশাপাশি আরএসএস, শাখা সংগঠন পুজোতেও জনসংযোগ চালিয়েছে। আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনকে লক্ষ্য করেই দল এগোচ্ছে। তবে যুবনেতাদের একাংশের অতি সক্রিয়তায় দলকে বিপাকে পড়তে হবে বলে দলের নেতাদের একাংশের আশঙ্কা। এসব ঘটনা কেন ফালাকাটাতেই বারবার হচ্ছে, সোশ্যাল মিডিয়ায় সক্রিয় নেতাদের কেন সতর্ক করা হচ্ছে না, এসব নিয়ে দলের ভিতরে প্রশ্ন উঠেছে।

অন্যদিকে, বিজেপির ওপর নজরদারি চালাতে তৃণমূল তাদের আইটি সেলকে ঢেলে সাজিয়েছে। দলের জেলার মুখপাত্র তথা বিধায়ক সৌরভ চক্রবর্তী বলেন, এখন থেকে ফালাকাটা সহ গোটা জেলায় কড়া নজরদারি চলবে। এজন্য দলের আইটি সেলের ১৪টি পয়েন্ট তৈরি করা হয়েছে। বিজেপির কেউ ভুল কিছু পোস্ট করলেই সঙ্গে সঙ্গে পদক্ষেপ করা হবে। তাঁর অভিযোগ, ফালাকাটাকে ঘাঁটি করে প্রচুর টাকা দিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে বিজেপি রাজ্য সরকার বিরোধী বিভ্রান্তিমূলক প্রচার চালাচ্ছে। বিজেপির জেলা সভাপতি গঙ্গাপ্রসাদ শর্মা বলেন, এসব অভিযোগের কোনও ভিত্তিই নেই। তাছাড়া সৌরভ চক্রবর্তীর সমস্ত প্রশ্নের উত্তর দিতে আমি বাধ্য নই।