ফাঁকাই ফিরল বাস, ঘরছাড়া কর্মীদের ফেরানো নিয়ে প্রশাসনিক টালবাহানার অভিযোগ বিজেপির

131

বক্সিরহাট: ভোট পরবর্তী হিংসার জেরে আতঙ্কিত বিজেপি কর্মীরা ঘর ছেড়ে অসমে আশ্রয় নিয়েছেন বলে তাঁদের ঘরে ফেরাতে বাংলার প্রশাসন টালবাহানা করছে বলে অভিযোগ বিজেপির। প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে, গত শনিবার রাতে ও রবিবার দুপুরে এই রাজ্যের প্রশাসনের তরফে অসমে আশ্রয় নেওয়া বিজেপি কর্মীদের আনতে দুটি করে মোট চারটি বাস পাঠানো হয়। তাঁদের এরাজ্যে ফেরাতে প্রশাসনের প্রতিনিধিরাও যান। কিন্তু অভিযোগ, প্রশাসনের প্রতিনিধিরা অসমে না গিয়ে অসম-বাংলা সীমানায় দাঁড়িয়ে থাকেন। এমনকি তাঁরা সেখানে গিয়ে অসম প্রশাসনের প্রতিনিধিদের সঙ্গে কথাও বলেননি। যার ফলে সেখানে আশ্রয় নেওয়া বিজেপি কর্মী-সমর্থকরা রাজ্যে ফেরার সাহস দেখাননি। দুদিনই ফাঁকা ফিরে আসে প্রশাসনের তরফে পাঠানো বাস। যদিও এ ব্যাপারে তুফানগঞ্জের মহকুমা শাসক কোনও মন্তব্য করতে চাননি। অসমের কোনও আধিকারিকেরও বক্তব্য মেলেনি। তবে অসম প্রশাসন সূত্রের খবর, এরাজ্যের প্রশাসনিক আধিকারিকরা অসমের আধিকারিকদের সঙ্গে সরাসরি কথা না বলা পর্যন্ত সেখানে আশ্রয় নেওয়া বিজেপি কর্মী-সমর্থকরা বাড়ি ফিরতে চাইছেন না।

অসমে আশ্রিত বিজেপি কর্মীদের ফেরাতে রবিবার বক্সিরহাট সংলগ্ন অসম-বাংলা সীমানার বালাকুঠিতে যান বিজেপির তুফানগঞ্জ বিধানসভা কেন্দ্রের সংযোজক উৎপল দাস। তিনি জানান, তৃণমূলের সন্ত্রাসের কারণে ১১০০ বিজেপি কর্মী-সমর্থক অসমে আশ্রয় নিয়েছেন। প্রশাসন তাঁদের ফেরত আনার কথা বললেও বাস্তবে উদ্যোগে খামতি রয়েছে। এ ব্যাপারে রাজ্য সরকার উদ্যোগী না হলে বাধ্য হয়ে তাঁরা রাজ্যপালকে চিঠি দেবেন। যদিও তুফানগঞ্জ আসনের পরাজিত তৃণমূল প্রার্থী প্রণবকুমার দে জানান, অসমে আশ্রিত বিজেপি কর্মীদের ফেরাতে রাজ্য প্রশাসন উদ্যোগ নিয়েছে। বিজেপির লোকজনই তাঁদের ফিরিয়ে আনতে বাধা দিচ্ছেন।

- Advertisement -