জলপাইগুড়িতে কোন্দল সামলাতে হিমসিম বিজেপি

177
ছবিটি প্রতীকী

জ্যোতি সরকার, জলপাইগুড়ি : গোষ্ঠীকোন্দলের ঘটনায় তিতিবিরক্ত রাজ্য বিজেপি। জলপাইগুড়ি সাংগঠনিক জেলায় দলের অভ্যন্তরীণ বিবাদের বিষয়ে বিস্তারিত খোঁজ নেওয়ার জন্য নজরদারি বাহিনী তৈরি করার নির্দেশ দিয়েছেন বিজেপির রাজ্য নেতৃত্ব। তাঁদের আশঙ্কা, আটটি বিধানসভা ক্ষেত্রে সুবিধাজনক অবস্থায় থাকলেও অভ্যন্তরীণ বিরোধ জলপাইগুড়ি জেলায় দলকে বিপাকে ফেলতে পারে। সেইজন্যই নজরদারি বাহিনী তৈরি করে কারা কারা গোষ্ঠীকোন্দলের সঙ্গে যুক্ত, তা খুঁজে বের করতে চাইছেন তাঁরা। তারপর তাঁদের নির্বাচনে দায়িত্বে না রেখে সংঘবদ্ধভাবে নির্বাচন পরিচালনা করার পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেছেন, জলপাইগুড়ি জেলা সম্পর্কে আমি জানি। দলের সাফল্যের ক্ষেত্রে যাঁরা বাধা হয়ে দাঁড়াবেন তাঁদের রেয়াত করা হবে না।

জলপাইগুড়ি জেলার আটটি বিধানসভা এলাকায় মোট ২,০০৬টি বুথ রয়েছে। নির্দেশে বলা হয়েছে, প্রতিটি বুথে দলের কর্মীদের ভূমিকায় নজরদারি বাহিনী লক্ষ রাখবে। ইতিমধ্যেই তৃণমূল, কংগ্রেস এবং বামফ্রন্টের শরিকদলগুলি থেকে যে সমস্ত নেতা-কর্মী বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন তাঁদের কাজকর্ম সম্পর্কে নির্দিষ্টভাবে তথ্য জানাতে হবে রাজ্য নেতৃত্বকে। রাজ্য নেতৃত্বের নির্দেশ পেয়ে জেলা নেতৃত্ব এ ব্যাপারে কাজ শুরু করেছেন। অন্য দল থেকে নেতা-কর্মীদের দলে গণহারে যুক্ত করা চলবে না বলে রাজ্য নেতৃত্ব পরিষ্কারভাবে  জানিয়েছেন। সাংগঠনিক জেলার আটটি বিধানসভা কেন্দ্রের নির্বাচনি দপ্তর খোলার জন্য রাজ্য থেকে আর্থিক সহায়তা জলপাইগুড়ি জেলা কমিটিকে দেওয়া হয়েছে। ইতিমধ্যে আটটি বিধানসভা ক্ষেত্রে বিজেপি নির্বাচনি দপ্তর খুলে কাজ শুরু করেছে। মঙ্গলবার ময়নাগুড়ি বিধানসভা ক্ষেত্রের নির্বাচনি দপ্তরের উদ্বোধন হল।

- Advertisement -

বিভিন্ন সূত্রে জানা গিয়েছে, ডাবগ্রাম-ফুলবাড়ি, রাজগঞ্জ, মাল, নাগরাকাটা, ধূপগুড়ি, ময়নাগুড়ি, জলপাইগুড়ি এবং মেখলিগঞ্জ বিধানসভা ক্ষেত্রে পাঁচ শতাধিক আরএসএস স্বেচ্ছাসেবক বিজেপির হয়ে নিঃশব্দে কাজ করে চলেছেন। আরএসএস স্বেচ্ছাসেবকরা স্থানীয়স্তরে বিজেপির নেতাদের ভাবমূর্তির বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য সংগ্রহ করছেন। যে সমস্ত নেতা সম্পর্কে সাধারণ ভোটারদের আপত্তি রয়েছে, তাঁদের বিষয়ে বিস্তারিত তথ্যসংবলিত রিপোর্ট আরএসএস স্বেচ্ছাসেবকরা ওপর মহলে পাঠাচ্ছেন। শুধু তাই নয়, বাড়ি বাড়ি গিয়ে কোন বাড়িতে কত ভোটার রয়েছেন, কোন কোন ভোটার বাইরে থাকেন, তাঁদের তালিকাও তৈরি করছেন আরএসএস স্বেচ্ছাসেবকরা। জলপাইগুড়ি জেলা বিজেপি সভাপতি বাপি গোস্বামী বলেন, রাজ্য নেতৃত্বের নির্দেশে আমরা কাজ করছি। রাজ্যস্তরে বিজেপির শৃঙ্খলারক্ষা কমিটি রয়েছে। এই কমিটি সমস্ত বিষয়ে ওপর লক্ষ রেখেছে।