চাঁচল, ৫ মেঃ থানার ভেতরে বিজেপির ব্লক সভাপতির ওপর হামলা। অভিযোগের তির তৃণমূল কর্মীদের দিকে। ঘটনায় উত্তেজনা ছড়িয়েছে মালদার হরিশ্চন্দ্রপুরে। তবে সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করেছে তৃণমূল।

জানা গিয়েছে, শনিবার রাতে ২৪ প্রহর সংকীর্তন এবং কালী পুজোর অনুমোদন নিতে হরিশ্চন্দ্রপুর থানায় যান বিজেপির হরিশ্চন্দ্রপুর ১ ব্লকের সভাপতি রুপেশ আগরওয়ালা। সঙ্গে ছিলেন বিজেপির কয়েকজন কর্মী-সমর্থক। অভিযোগ, থানার ভেতরেই তাঁদের ওপর হামলা চালায় একদল তৃণমূল কর্মী। ঘটনায় আহত রুপেশ আগরওয়ালাকে হরিশ্চন্দ্রপুর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। রুপেশ বাবু বলেন, ‘পরিকল্পনা করেই আমার ওপর হামলা চালিয়েছে তৃণমূলের কর্মীরা। পঞ্চায়েত ভোটের পর থেকেই আমাকে হুমকি দেওয়া হত।’

অন্যদিকে, সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করে তৃণমূলের পালটা অভিযোগ, গতকাল সন্ধ্যায় তাঁদের পঞ্চায়েত সদস্য দ্রোণাচার্য ব্যানার্জীর ওপর কয়েকজন বিজেপি কর্মী হামলা চালায়। তবে এই অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছে বিজেপির হরিশ্চন্দ্রপুর ২ ব্লকের সভাপতি কিষাণ কেডিয়া। তাঁর বক্তব্য, ‘নিজেরা বাঁচতে কেস সাজাচ্ছে তৃণমূল। ব্যক্তিগত ঝামেলা জেরে দ্রোণাচার্য ব্যানার্জীর ওপর হামলা হয়েছে। এরসঙ্গে রাজনীতির কোনো সম্পর্ক নেই।’ এই ঘটনায় এখনও পর্যন্ত কেউ গ্রেফতার হয়নি বলে জানা গিয়েছে।