বর্ধমানের মাটিতে পা রেখেই সিদ্দিকুল্লাহ চৌধুরীকে কটাক্ষ রাহুলের

143

বর্ধমান: কৃষক সুরক্ষা অভিযানে অংশ নিতে পূর্ব বর্ধমানের মাটিতে পা রেখেই রাজ্যের মন্ত্রী সিদ্দিকুল্লাহ চৌধুরীকে একহাত নিলেন বিজেপি নেতা রাহুল সিনহা। বুধবার সিদ্দিকুল্লাহর নেতৃত্বে জমিয়তে উলেমায়ে হিন্দের সদস্যরা গলসিতে ২ নম্বর জাতীয় সড়ক আবরোধ করেছিল তিনঘন্টা। তারই জেরে দীর্ঘ পথ ঘুর দুর্গাপুর পৌঁছায় কোভিড ভ্যাকসিন বোঝাই গাড়ি। সেই প্রসঙ্গ তুলে ধরে রাহুল সিনহা এদিন বলেন, রাজ্যে ঠিকঠাক সরকার চললে উনি গ্রেপ্তার হতেন। অন্যদিকে রাহুল সিনহা প্রশ্ন কৃষকদের জন্য কী করেছেন সিদ্দিকুল্লাহ? তৃণমূলের বাজার খারাপ। তাই ওকে এখন ময়দানে নামিয়েছে। ভ্যাকসিন একটা জরুরি বিষয়। সেটা সবার প্রয়োজন। সেই গাড়ি আটকে পড়ায় ওনার ক্ষমা চাওয়া উচিৎ বলে রাহুল সিনহা মন্তব্য করেছেন।

এদিন কলকাতা থেকে সোজা বর্ধমানে পৌঁছান রাহুল সিনহা। বর্ধমানের আমরা গ্রামে রাজনৈতিক কর্মসূচীতে যোগ দেল তিনি। সেখানে পদযাত্রা করেন তিনি। পদযাত্রার মাঝেই একাধিক কৃষক পরিবারে কাছে গিয়ে চাল আর আলু সংগ্রহ করে নিজের কাছে থাকা ঝোলায় ভরেন রাহুল বাবু। ওইসব কৃষক পরিবারের সদস্য শিবপ্রসাদ মাজি; শ্যামলী মাঝি, কৃষ্ণা পাকরে, পদ্মা বাগ, শ্যামলী দাস ও প্রিয়াঙ্কা নায়কেরা রাহুল সিনহাকে তাদের সমস্যার কথা জানান। অন্য়দিকে রাহুল সিনহা তাদের জানিয়েছেন, কেন্দ্রের কৃষি আইনে চাষিরা লাভবান হবেন। এরপর দুপুরে গ্রামেরই এক বাসিন্দা পরেশচন্দ্র দাসের বাড়িতে মধ্যাহ্নভোজ সারেন তিনি।

- Advertisement -

দলীয় কর্মসূচী শেষে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে রাহুল সিনহা তীব্র আক্রমণ করেন সিদ্দিকুল্লাহ চৌধুরীকে। রাজ্যের এই মন্ত্রীর সমালোচনা করার পাশাপাশি রাহুল সিনহ বলেন, কেন্দ্রের কৃষি আইনে স্থগিতাদেশ একটা সাময়িক ব্যাপার। দিল্লিতে যারা আন্দোলন করছেন তারা কৃষকের নামে দালালদের আন্দোলন করেছেন।  বিজেপি নেতারা কৃষকদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাতে ও কৃষি আইনের ভাল দিক তুলে ধরে গ্রামে গ্রামে যাচ্ছেন।তাই এই চাল সংগ্রহের কর্মসূচি চলছে। অমিত শাহ যখন রাজ্যে আসবেন তখন এই চালের খিচুড়ি প্রসাদ সবাই গ্রহণ করবেন।