কর্মীদের ঘরে ফিরিয়ে পুলিশকে হুঁশিয়ারি বিজেপি নেত্রীর

107

বর্ধমান, ১২ জুনঃ দলের কর্মীদের বাড়িতে ফিরিয়ে পুলিশের উদ্দেশ্যে হুঁশিয়ারি দিলেন বিজেপির মহিলা নেত্রী তথা আইনজীবী প্রিয়াঙ্কা টিবরেওয়াল।নিজে সশরীরে হাজির হয়ে শনিবার তিনি ঘর ছাড়া পূর্ব বর্ধমানে খণ্ডঘোষের বিজেপি কর্মীদের বাড়ি ফিরিয়ে দেন। এরপরেই প্রিয়াঙ্কা টিবরেওয়াল বলেন, ঘরে ফেরা বিজেপি কর্মীদের উপরে, আবার যদি আক্রমণ হয়, তাহলে তিনি জেলার সংশ্লিষ্ট থানার পুলিশ কর্তা এমনকি জেলা পুলিশ সুপারের বিরুদ্ধেও হাইকোর্টে মামলা করবেন। বিজেপির লিগাল সেলের নেত্রীর এমন হুঁশিয়ারিতে রাজনৈতিক মহলে শোরগোল পড়েছে।

ভোট পরবর্তী হিংসার কারণে পূর্ব বর্ধমান জেলার বিভিন্ন জায়গায় বহু বিজেপি কর্মী সমর্থক ভয়ে ঘর ছাড়া হন। ঘর ছাড়াদের ঘরে ফেরানোর জন্যে বিজেপি রাজনৈতিকভাবে উদ্যোগ নেওয়ার পাশাপাশি, আইনি প্রক্রিয়াও চালায়। তাঁরা হাইকোর্টে মামলা করেন। যার মূলে থাকেন রাজ্য বিজেপি নেত্রী তথা হাকোর্টের আইনজীবী প্রিয়াঙ্কা টিবরেওয়াল। বিধানসভা
ভোটের ফল প্রকাশের পর পূর্ব বর্ধমান জেলা সহ রাজ্যজুড়ে বিজেপি কর্মী ও সমর্থকদের উপরে হামলা সন্ত্রাস চালানোর অভিযোগ ওঠে তৃণমূলের বিরুদ্ধে।সন্ত্রাসের ভয়ে অনেক জায়গায় বিজেপি কর্মীরা ঘরছাড়া হন। কিছু বিজেপি কর্মী ও সমর্থক বাড়ি ফিরলেও, অনেক বিজেপি কর্মী এখনও ঘর ছাড়া হয়েই রয়েছেন। বর্ধমান জেলা বিজেপি কার্যালয়ে আশ্রয় নিয়ে থাকেন জেলার অনেক ব্লকের বিজেপি কর্মী।

- Advertisement -

তাঁদের বাড়ি পৌঁছে দিতে বিজেপি নেত্রী ও তথা আইনজীবী প্রিয়াঙ্কা টিবরেওয়াল এদিন বর্ধমানের জেলা বিজেপি কার্যালয়ে যান। বিজেপি কর্মী ও তাদের পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে দেখা করেন। পরে জেলার খণ্ডঘোষের ঘর ছাড়াদের বাড়ি ফেরাতে প্রিয়াঙ্কা টিবরেওয়াল নিজে উদ্যোগী হন। বিজেপি নেত্রী প্রিয়াঙ্কা টিবরেওয়াল এদিন বলেন, ভোটে একটা দল জিতেছে বলে অন্য দলের কর্মীরা আক্রান্ত হবেন, বাড়ি ছাড়া হবেন এটা কেমন গণতন্ত্র? বিজেপি কর্মীদের বাড়ির বাইরে রাত কাটাতে হবে, এটা আমরা মানছি না, মানবো না।

তিনি আরও বলেন, এই ঘটনার বিষয়ে হাইকোর্টে মামলা করা হয়েছে। আদালতের রায়ের মধ্যেই আইনিভাবে ঘর ছাড়াদের ঘরে ফেরানোর কথা উল্লেখ রয়েছে। খণ্ডঘোষে ঘর ছাড়াদের এদিন বাড়ি ফেরানো হল। এরপর ফের যদি তাঁদের উপরে আক্রমন হয়, তাহলে আবার তিনি আদালতের দ্বারস্থ হবেন বলে মন্তব্য করেছেন। প্রয়োজনে সংশ্লিষ্ট থানার পুলিশ প্রশাসনের ওসি, আইসি এমনকি জেলা পুলিশ সুপারের বিরুদ্ধেও মামলা করা হবে বলে এদিন প্রিয়াঙ্কা টিবরেওয়াল হুঁশিয়ারী দিয়েছেন।

জেলা বিজেপির সহ সভাপতি প্রবাল রায় বলেন, খণ্ডঘোষের ঘর ছাড়াদের বাড়ি ফেরানো দিয়ে প্রক্রিয়া শুরু হল। একই প্রক্রিয়া মেনে রায়না, মেমারি ও বর্ধমান দক্ষিণ, ভাতার, আউশগ্রাম, গলসি ও বর্ধমান উত্তরের ঘর ছাড়া বিজেপি কর্মীদেরও বাড়িতে ফেরানো হবে। তৃণমূলের রাজ্যের মুখপাত্র দেবু টুডু বলেন, মিথ্যা অভিযোগ তোলার ব্যপারে বিজেপি নেতাদের জুড়ি নেই। জেলার কোথাও তৃণমূলের কেউ বিজেপি কর্মীদের ঘর ছাড়া করেননি। কারণ, তৃণমূল কংগ্রেস হিংসার রাজনীতিতে বিশ্বাস করে না। ওটা যে বিজেপির কালচার, আর সেটা ভোটে বিজেপি নেতাদের প্রচার থেকেই রাজ্যের মানুষের কাছে পরিস্কার হয়ে গিয়েছে। ভয়ে এখন বিজেপি কর্মীরা নিজেরা বাড়ি ছেড়েছেন। তৃণমূলের নামে মিথ্যা অভিযোগ করা হচ্ছে। এর জবাব আগামী দিনেও রাজ্যবাসী বিজেপিকে দেবে।