বিজেপির মণ্ডল সম্পাদকের ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার

অনলাইন ডেস্ক: বিজেপি নেতার ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়াল দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলার সাগরের ঘোড়ামারা এলাকায়।

বৃহস্পতিবার সকালে ঘোড়ামারা ২ নম্বর ব্লকের হাটখোলার বিজেপির মণ্ডল সম্পাদক গৌতম পাত্রের (৫২) দেহ এলাকার একটি গাছ থেকে উদ্ধার হয়। তাঁর বাড়ি লাগোয়া একটি জঙ্গলের মধ্যে গাছে স্থানীয় বাসিন্দারা দেহটি ঝুলতে দেখেন। ঘটনা ঘিরে এলাকায় ব্যাপক উত্তেজনা ছড়ায়। বিজেপি নেতা-কর্মীরা খুনের অভিযোগ তুলে  তুমুল বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন। বিশাল পুলিশবাহিনী এলাকায় যায়। এরপর পুলিশ দেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠায়।

- Advertisement -

পুলিশ জানিয়েছে, ময়নাতদন্তের রিপোর্ট মিললে মৃত্যু আসল কারণ জানা যাবে। তবে এই ঘটনা ঘিরে ইতিমধ্য়েই তৃণমূল বিজেপি চাপানউতোর শুরু হয়েছে। মথুরাপুর সাংগঠনিক জেলার বিজেপির সভাপতি দীপঙ্কর জানার জানান, বুধবার রাতে গৌতমবাবুকে ব্যাপক মারধর করে তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীরা। তারপর তাঁকে ছেড়ে দেওয়া হলেও গভীর রাতে ওই দুষ্কৃতীরাই তাঁকে তুলে নিয়ে গিয়ে খুন করে গাছে ঝুলিয়ে দেয়। আমপান দুর্নীতির প্রতিবাদ করাতেই খুন হতে হল গৌতমবাবুকে, এমনই অভিযোগ দীপঙ্করবাবুর।

তবে তৃণমূলের পালটা দাবি এই ঘটনার সঙ্গে তাদের কোনও যোগ নেই। সাগরের তৃণমূল বিধায়ক বঙ্কিম হাজরা জানান, একটা আত্মহত্যার ঘটনা নিয়ে বিজেপি নোংরা রাজনীতি করছে। তাদের জন্যই এলাকার পরিবেশ উত্তপ্ত হয়েছে। মৃত ব্যক্তির চারিত্রিক কিছু সমস্যা ছিল। এনিয়ে মৃতের পরিবারেও অশান্তি হয় বলে দাবি করেন তিনি। আত্মহত্যার ঘটনাকে খুন বলে প্রচার করে রাজনৈতিক ফায়দা তোলার চেষ্টা করছে বিজেপি নেতৃত্ব বলে অভিযোগ বিধায়কের।