দুই বিজেপি সমর্থককে কানধরে ওঠবস, সরব বিজেপি

49

বর্ধমান: দুই বিজেপি সমর্থককে কানধরে ‘ওঠবস’ করানোর ঘটনায় রাজ্যের তপশিলি কমিশন ও মানবাধিকার কমিশনে অভিযোগ জানাল বর্ধমানের বিজেপি নেতৃত্ব। একইসঙ্গে বর্ধমান থানা ও পূর্ব বর্ধমান জেলা পুলিশ সুপারকেও চিঠি দিয়ে সমস্ত বিষয় জানানো হয়েছে বলে দাবি করেছেন বিজেপির নেতারা। যদিও জেলার পুলিশ কর্তারা জানিয়েছেন, রবিবার সন্ধ্যা পর্যন্ত তাঁরা কোনও অভিযোগ পাননি। জেলা পুলিশ সুপার কামনাশিস সেন জানিয়েছেন, অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

দুই বিজেপি সমর্থককে প্রকাশ্য দিবালোকে কানধরে ওঠবস করানোর ঘটনার ভিডিও ভাইরাল হয় শনিবার। ঘটনায় শোরগোল পড়ে যায় রাজনৈতিক মহলে। এরপরেই বর্ধমান দক্ষিণ বিধানসভার বিজেপি আহ্বায়ক কল্লোল নন্দন তপশিলি কমিশন ও মানবাধিকার কমিশনকে চিঠি লেখেন। কল্লোলবাবু বলেন, ‘শহর বর্ধমানে এই ধরণের ঘটনা লাগাতার ঘটছে। কিন্তু সব জেনেও প্রশাসন নির্বিকার। এর আগেও বর্ধমান শহর লাগোয়া একটি বাজারে বিজেপি কর্মী পরিবারের এক মহিলাকে কান ধরে ‘ওঠবস’ করানোর ভিডিয়ো ভাইরাল হয়েছিল। তাঁর অভিযোগ দুটি ঘটনাই ঘটিয়েছেন তৃণমূলের নেতা-নেত্রীরা।

- Advertisement -

দুই বিজেপি সমর্থককে কানধরে ওঠবস করানোর কথা শনিবার স্বীকার করেছিলেন তৃণমূলের এসসি ও ওবিসি সেলের জেলা সম্পাদক অশোক মণ্ডল। যদিও জেলা তৃণমূলের অন্য নেতৃত্বরা এই ঘটনায় ক্ষুব্ধ।তাঁদের বক্তব্য এধরনের ঘটনার জেরে দলের মুখ পুড়ছে। যারা এইসব করছে তারা দলের নির্দেশ ‘অমান্য’ করেই এইসব করছে। কেউ কেউ এইসব করে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির চেষ্টা চালাচ্ছেন। যদিও তৃণমূল কংগ্রেসের জেলা সভাপতি স্বপন দেবনাথ বলেন, ‘এমন বিশৃঙ্খল কাজকর্ম মুখ্যমন্ত্রী বরদাস্ত করবেন না। যাঁরা এই ঘটনা ঘটাচ্ছেন বা ঘটাবেন বলে ভাবছেন, তাঁরা আমাদের দলের কেউ নন।’