ভোটে জিতে বিজেপি কর্মীদের পাশে থাকার বার্তা মালতি রাভার

193

তুফানগঞ্জ: উপ-সংশোধনাগারে বিচারাধীন পাঁচজন বিজেপি কর্মীর সঙ্গে দেখা করলেন তুফানগঞ্জের বিধায়ক মালতি রাভা রায়। শনিবার তিনি তুফানগঞ্জের উপ-সংশোধনাগারে বিচারাধীন বিজেপির নাটাবাড়ি বিধানসভা কেন্দ্রের কো-কনভেনর চিরঞ্জিত দাস, রাম কুমার পাল, বাসুদেব পাল, বিপ্লব সরকার ও বিপ্লব বসাকের সঙ্গে কথা বলেন। তাঁদের মধ্যে প্রথম তিনজন চিলাখানার তৃণমূল কর্মী শাহিনুর রহমানের খুনের ঘটনায় বিচারাধীন রয়েছেন। এদিন মালতিদেবী তাঁদের শারীরিক অবস্থার খোঁজ নেন। সরকারি নিয়ম মেনে মুড়ি, বিস্কুট দেন। এছাড়াও তিনি উপ-সংশোধনাগারে বিচারাধীন চিরঞ্জিত দাসের বোন চপলা দাসের কথা সঙ্গে কথা বলেন। এরপরই সেখান থেকে মালতিদেবী সোজা চলে যান তুফানগঞ্জ মহকুমা হাসপাতালে যান। সেখানে গিয়ে তুফানগঞ্জ মহকুমা হাসপাতালের সুপারের সঙ্গে কথা বলেন। হাসপাতালে কতগুলো ভ্যাকসিন দেওয়া হচ্ছে, তা কিভাবে দেওয়া হচ্ছে, সে বিষয়ে খোঁজ খবর নেন। এছাড়াও হাসপাতালের এক্স-রে মেশিন, ইউএসজি মেশিনের পরিস্থিতি নিয়ে কথা বলেন।

তুফানগঞ্জ মহকুমা হাসপাতাল থেকে বের হয়ে মালতিদেবী জানান, তুফানগঞ্জ মহকুমা হাসপাতালের পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা ও বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ মেশিন নিয়ে আলোচনা হয়েছে। এছাড়াও ভ্যাকসিন নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে। তিনি আরও জানান, তুফানগঞ্জ মহকুমা হাসপাতালে কতগুলো বিওডি ক্যাটাগরি অক্সিজেন সিলিন্ডার রয়েছে, সে বিষয়ে আলোচনা করা হয়েছে। মোবাইল সিলিন্ডার অ্যাম্বুলেন্স কতগুলো রয়েছে, তা নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে বলে জানান তিনি। পরে নাককাটিগছের দ্বীপের পাড়ের বাসিন্দা সামসুল ডাক্তারের সঙ্গে কথা বলেন। মালতিদেবীর অভিযোগ, ‘তৃণমূলের হার্মাদ বাহিনীর দ্বারা আক্রান্ত হয়েছেন সামসুল ডাক্তার। তিনি আমাদের দলের একজন বুথের সহ সভাপতি।’ এরপরই মহিষকুচি চলে যান মালতিদেবী। এদিন মালতিদেবীর সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন বিজেপি নেতৃত্ব নিতাই দাস, আশিস পাল, আইনজীবী অশোক প্রধান সহ অন্যান্যরা।

- Advertisement -

এপ্রসঙ্গে তৃণমূলের রাজ্য সহ সভাপতি রবীন্দ্রনাথ ঘোষ বলেন, ‘মালতিদেবী মিথ্যের আশ্রয় নিয়ে রাজনীতি করছেন। তৃণমূল হিংসার রাজনীতিতে বিশ্বাসী নয়। তৃণমূলীরা শান্তির নীতিতে বিশ্বাসী।’