নির্মীয়মাণ ফরাক্কা ব্যারেজ এলাকা পরিদর্শনে বিধায়ক

215

বৈষ্ণবনগর: দীর্ঘদিন ধরে কাজ বন্ধ থাকার অভিযোগে নির্মীয়মাণ ফরাক্কা ব্যারেজ এলাকা ঘুরে দেখলেন ইংরেজবাজারের বিধায়ক শ্রীরূপা মিত্র চৌধুরী। দ্রুত কাজ চালু করার জন্য কেন্দ্রের কাছে রিপোর্ট পাঠাবেন বলে জানান বিধায়ক।

উত্তরবঙ্গ এবং দক্ষিণবঙ্গে একমাত্র যোগাযোগের মাধ্যম ফরাক্কা ব্যারেজ। এই ব্যারেজের ওপর চাপ কমাতে কেন্দ্রীয় সরকার নতুনভাবে ফরাক্কায় আরেকটি সেতু নির্মাণের উদ্যোগ নেয়। সেইমতো কয়েকশো কোটি টাকা বরাদ্দ করে কেন্দ্রীয় সরকার। যথারীতি কাজও শুরু হয়। কিন্তু বছরখানেক আগে কাজ করতে গিয়ে নতুন সেতুর কিছু অংশ ধসে পড়ে। ফলে কর্মরত চার জন শ্রমিকের মৃত্যু হয় বলে অভিযোগ ওঠে। তারপর থেকেই ওই সেতুর কাজ প্রায় বন্ধ রয়েছে। ফলে চাপ বাড়ছে ফরাক্কা ব্যারেজের। এতদিন ধরে কেন এই সেতুটির কাজ বন্ধ রাখা হয়েছে, সমস্ত বিষয়টি এদিন খতিয়ে দেখেন বিজেপির বিধায়ক। এমনকি আশেপাশের মানুষের সঙ্গে তিনি কথা বলেন।

- Advertisement -

বিজেপি বিধায়ক শ্রীরূপা মিত্র চৌধুরী জানান, কেন্দ্র অর্থ বরাদ্দ করলেও কাজটি রাজ্য সরকারের অধীনেই হচ্ছিল। কিন্তু তৃণমূলের কিছু নেতারা এখান থেকে কাটমানি খাচ্ছেন। তাই যেরকম ভাবে সেতুটি নির্মাণ করার কথা ছিল সেরকম ভাবে নির্মাণ হচ্ছিল না। তারপরেই কাজ করার সময় নতুন সেতুর কিছু অংশ ভেঙে পড়ে। সেখানে চাপা পড়ে মৃত্যু হয় কর্মরত বেশ কয়েকজন শ্রমিকের। তারপর থেকেই এই নতুন সেতুটির কাজ পুরোপুরি বন্ধ হয়ে গিয়েছে। এদিন এলাকাটি ঘুরে দেখা হল। সেতু নির্মাণের কাজ শুরু করলে কোনও অসুবিধা হবে না। রাজ্য সরকার কেন যে কাজটি করার অনুমতি দিচ্ছে না, তা বুঝে উঠতে পারছেন না বলে জানান শ্রীরূপা মিত্র। কাজটি যেন শীঘ্রই চালু হয় সেই মর্মে তিনি কেন্দ্রীয় জল সম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রকের কাছে রিপোর্ট পাঠানো হবে এবং সেতু নির্মাণে সমস্ত সরঞ্জাম যেন সঠিক ভাবে ব্যবহার করা হয় সেই দিকে নজর রাখা হবে বলে জানান বিজেপি বিধায়ক।

বিজেপির মালদা জেলা সম্পাদক তারক ঘোষ জানান, শ্রীরূপা মিত্র যেহেতু দক্ষিণ মালদার লোকসভা কেন্দ্রে প্রার্থী হয়েছিলেন। তাই দক্ষিণ লোকসভা কেন্দ্রটি দেখভালের দায়িত্ব তাঁর ওপরে রয়েছে। তাই বুধবার বিজেপির একটি প্রতিনিধি দল নির্মীয়মাণ ফারাক্কা ব্যারেজ এলাকা ঘুরে দেখেছেন। তাঁর অভিযোগ, সেতু নির্মাণের কাজে তৃণমূলের নেতৃত্ব কাটমানি খেয়েছেন। তাই সেতু নির্মাণের জিনিসপত্র সরবরাহ নিয়ে জালিয়াতি করা হয়েছে। ভালো মানের সরঞ্জাম দিয়ে যাতে সেতুটি আবার নির্মাণ করা হয় তার দাবি জানানো হয়েছে।