মালদা, ৬ জুনঃ বাড়ি ফেরার পথে বিজেপি কর্মীকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কোপ মারার অভিযোগ উঠল দুই তৃণমূল কংগ্রেস কর্মীর বিরুদ্ধে। বুধবার রাতে মালদার হবিবপুর থানার জাজল পঞ্চায়েতের জিয়াকান্দর গ্রামের ঘটনা। কোমরে ধারালো অস্ত্রের কোপ লেগে গুরুতর জখম আবস্থায় ওই বিজেপি কর্মী বর্তমানে মালদা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। ঘটনার তদন্ত শুুুরু করেছে হবিবপুর পুলিশ।
স্থানীয় ও পুলিশ সুত্রে জানা গিয়েছে, জখম বিজেপি কর্মীর নাম বিদ্যাসাগর চৌধুরি(২৬)। বাড়ি জাজল পঞ্চায়েতের জিয়া কান্দর গ্রামে। এলাকায় বিজেপি কর্মী হিসাবে পরিচিত বিদ্যাসাগর। গত পঞ্চায়েত নির্বাচন থেকে ওই এলাকায়  বিজেপি ভাল ফল করে আসছে। সেই সময় থেকে স্থানীয় তৃণমূল কর্মী যোগেশ চৌধুরি ও তার ছেলে ঋতুরাজ চৌধুরি বিদ্যাসাগরকে হুমকি দিয়ে আসছে বলে অভিযোগ। এবার লোকসভা নির্বাচনেও এলাকায় বিজেপি ভাল ফল করেছে। বুধবার রাতে সাইকেলে করে বাড়ি ফিরছিলেন বিদ্যাসাগর। সেই সময় যোগেশ ও তার ছেলে ধারালো অস্ত্র ও লাঠি নিয়ে তার উপর হামলা চালায়। বিদ্যাসাগরকে ব্যাপক মারধর করে কোমরে ধারালো অস্ত্রের কোপ মারা হয়। খবর পেয়ে দাদাকে বাঁচাতে ছুটে আসেন বিদ্যাসাগরের ভাই মানু চৌধুরি। তাঁকেও অভিযুক্তরা মারধর করে বলে অভিযোগ। পরে স্থানীয়রা দুজনকে উদ্ধার করে বুলবুলচন্ডী গ্রামীণ হাসপাতালে নিয়ে যায়। অবস্থা আশঙ্কাজনক থাকায় বিদ্যাসাগরকে মালদা মেডিকেলে পাঠানো হয়। বর্তমানে সেখানেই চিকিৎসাধীন রয়েছেন তিনি।